| |

ভালুকায় আমন ক্ষেতে পোকার আক্রমন দিশেহারা কৃষক

নিজস্ব সংবাদদাতা  : ভালুকা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আমন ক্ষেতে পাতা মোড়ানো রোগদেখা দেয়ায় কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পরেছে। কৃষকদের সাথে কথা বলে জানাযায়, ধানের পাতাপোড়া, পাতা হলুদ, গোড়াপঁচা ও কিছু কিছু যায়গায় পোকার আক্রমন দেখা দিয়েছে। এসব দমনে সার, কীটনাশক প্রয়োগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না বলে অনেকের অভিযোগ। হবিরবাড়ী মনোহরপুর গ্রামের কৃষক নিজাম উদ্দীন জানান, গত কয়েকদিন ধরে তার ক্ষেতের মাঝে মাঝে ১০/১৫ টি করে ধানের গোছা বৃত্তাকার জায়গানিয়ে মরে পঁেচ মাটিতে মিশে যাচ্ছে। তিনি স্থানীয় ডিলারের সাথে পরামর্শ করে কিছুদিন পূর্বে ক্ষেতে ঔষধ দিয়েও প্রতিকার পাননি। পার্শ্ববর্তী বারশ্রী খালপাড়ে ৬ কাঠা জমি চাষ, রোপন, সার, সেচ ও কীটনাশক বাবদ প্রায় ১০ হাজার টাকার মত তার খরচ হয়েছে। তিনি সহ আরও কয়েকজন কৃষক জানান কৃষি বিভাগের লোকজন তাদের এলাকায় না আসার কারনে সঠিক পরামর্শের অভাবে তারা ক্ষেতের ঠিকমত পরিচর্যা করতে না পারায় তাদের ফসল নষ্ট হচ্ছে। একই এলাকার নূরু মিয়ার ২ একর আমন ক্ষেত হলুদ রং ধারন করে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, বারশ্রী খালপাড়ে মনোহরপুর গ্রামের আরেক কৃষক নাজুর ৮ কাঠা জমির ধান সহ আশ পাশের ও খালের দুই পারের বেশীরভাগ  আমন ক্ষেত একই রোগে আক্রান্ত হয়ে ফসল নষ্ট হচ্ছে। এছারা ওই এলাকার বেশীরভাগ কৃষকের আমন ধান হলুদ রং ধারন করে পাতামরে যাচ্ছে। হবিরবাড়ী বটতলার আব্দুর রউফ ফকিরের ৬ কাঠা জমির সম্পুর্ণ ধান হলুদ  রং ধারন করায় কাঁচা ক্ষেতের পাশে যেন পাকা ধানের মত দেখাচ্ছে। অপরদিকে উপজেলার ডাকাতিয়া ইউনিয়নের সোনাখালী গ্রামের আব্দুল করিমের ৬ কাঠা জমির ধান গোড়াপঁেচ ক্ষেতের ধান গাছ মরে নষ্ট হচ্ছে। ওই এলাকায় এ রকম অনেক কৃষকের ধান এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে। এছারা উপজেলার ডাকাতিয়া, কাচিনা, উথুরা, বিরুনীয়া, মেদুয়ারী ইউনিয়ন সহ ১১ ইউনিয়নের প্রায় গ্রামেই আমন ক্ষেতের সবুজ রং বদলে হলদে হয়ে গেছে। এর ফলে চলতি মৌসুমে আমন ধানের ফলন কম হওয়ার আশংকায় রয়েছেন কৃষকরা।
ধান গাছ হলুদ হওয়ার বিষয়টি স্বিকার করে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল আজম খান জানান ভালুকায় এ বছর প্রায় ১৯ হাজার হেক্টর জমিতে আমন আবাদ হয়েছে, অতিবৃষ্টি ও জমিতে পটাশ সারের অভাব জনিত কারনে ধানের পাতা কোন কোন এলাকায় হলুদ হয়ে যাচ্ছে।