| |

দুর্গাপুর স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা

প্রতিনিধি নেত্রকোনা ঃ নেত্রকোনার সীমান্তবর্ত্তী দুর্গাপুর উপজেলায় বিশিষ্ট বস্ত্র ব্যবসায়ি অরুন কুমার সাহা (৭৪) ও তাঁর স্ত্রী হেনা রানী সাহা (৬৫) কে জবাই করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার দুপুর ১২ টায় পৌর শহরের বড় বাজারে সুবর্না প্লাজার নিজ বাস ভবনের বেডরুমের তৃতীয় তলায় এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। প্রকাশ্যে দিনে-দপুরে এই নৃশংস জোড়া খুনের ঘটনায় এলাকাবাসী ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন। আবার অনেকে এই নৃশংস ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে দ্রুত খুনীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। শেষে স্থানীয় এমপি ঘটনাস্থলে পৌঁছে এলাকাবাসীকে শান্ত করেন। পুলিশ ও পরিবার সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার দুপুর ১২ টায় ঘটনার সীমান্তবর্ত্তী দুর্গাপুরের প্রাণকেন্দ্রে সুবর্না প্লাজার পাশ্ববর্ত্তী এলাকায় বসবাসরত ছোট ভাই অজিত কুমার সাহার স্ত্রী সুচিত্রা রানী সাহা (৫৫) ভাসুর ও জার কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে খোঁজ নেয়ার জন্য তৃতীয় তলায় গিয়ে দরজা ধাক্কা দিতেই দরজা খুলে যাওয়ায় ভাসুর ও জায়ের রক্তাত্ত মৃতদেহ ঘরের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার শুরু করলে, আশ পাশের লোকজন এসে ঘটনা দেখে দুর্গাপুর থানায় খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন কওে তদন্তের প্রয়োজনে বেডরুম নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে সংরক্ষিত করে রাখে। ঘটনার পর পর স্থানীয় এমপি ছবি বিশ্বাস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সুবর্না প্লাজার সামনে উৎসুক জনতার উদ্দেশ্যে তিনি আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে অপরাধী খুনদের গ্রেফতার করার জন্য দুর্গাপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও দ্রুত খুনীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে স্থানীয় পুজা উদযাপন পরিষদ, বিজয়া দশমীর সকল আনুষ্ঠানিকতা বর্জন করে আগেভাগেই প্রতিমা বিসর্জন দেন। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সকল আনন্দ-উৎসব মাটি হয়ে দুঃখ-হতাশায় পরিণত হয়। দুর্গাপুর থানর ওসি রেজাউল ইসলাম খকান জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই খুনের ঘটনা ঘটে। খুনীদের সনাক্ত করা যায়নি। এ ব্যাপার মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।