| |

ময়মনসিংহের প্রবীণ রূপসজ্জা শিল্পী নারায়ণ বসাক পরলোকে

স্টাফ রির্পোটার: শ্রমিক নেতা কমল বসাকের পিতা ও বিশিষ্ট কন্ঠ শিল্পী ও এম.আই.এস এর শিক্ষিকা শিল্পী রায়ের শ^শুর শহরের ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন আর.কে. মিশন রোড নিবাসী ময়মনসিংহের প্রবীণ রূপসজ্জা শিল্পী নারায়ণ চন্দ্র বসাক (৯০) শনিবার দুপুর ২ টায় বার্ধক্যজনিত কারণে নিজ বাস ভবনে পরলোক গমন করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার পুত্র, একমাত্র কন্যা, নাতী-নাত্নীসহ অসংখ্য স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে যান। তার মৃত্যু সংবাদে ময়মনসিংহের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। শোকার্ত পরিবারের সদস্যদের সান্তনা দিতে ও এক নজর দেখার জন্য ময়মনসিংহের বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পী কলাকুশলীরা ছুটে যান শিল্পীর বাস ভবনে এবং শেষ শ্রদ্ধাঞ্জলী দিতে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পী ফেরদৌস হীরা, অরবিন্দ সরকার জীবন, এড. আবুল কাশেম, এড. এমদাদুল হক মিল্লাত, আব্দুল হক শিকদার, ইব্রাহীম খলিল, সাংবাদিক নজীব আশরাফ, ডাঃ এইচ.এ. গোলন্দাজ তারা, আজাহার হাবলু, ফেরদৌস আরা মাহমুদা হেলেন, মনিরা বেগম মনি, শ্রমিক নেতা ফয়েজুর রহমান, ওয়াহাব মাহমুদ রমজান, শরীফ মাহফুজুল হক আপেল, বুলবুল আহম্মেদ, মনিভূষন ভট্টাচার্য, আবুল কাশেম সরকার, দেলোয়ার হোসেন বাদল, রজত চক্রবর্তী, আবুল মনসুর, হীরা সওদাগর, মনির হোসেন খান তুষার, মাহবুব হোসেন শরীফ, যীশুতোষ তালুকদার, সনৎ কুমার, নাজমুল হক লেলিন, আবুল হাসিম, খন্দকার আব্দুর রহিম মিন্টুসহ ময়মনসিংহের অসংখ্য শিল্পী, সাংস্কৃতিক কর্মী ও দোকান কর্মচারী ইউনিয়ন এবং ট্রেড ইউনিয়নের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। ঐ দিন রাতেই কেওয়াটখালী পৌর শ^শানে তাঁকে দাহ করা হয়। উল্লেখ্য এক সময়ের মাউথ অর্গান বাদক প্রবীণ এই শিল্পী সাত দশকের উপরে ময়মনসিংহসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দক্ষতার সাথে নিপুন হাতে যাত্রা ও নাট্য শিল্পীদের রূপসজ্জার কাজ করে প্রশংসা কুঁড়িয়েছেন। একজন গুনী শিল্পী হিসেবে জেলা শিল্পকলা একাডেমীর গুনীজন সন্মাননা অর্জন, ময়মনসিংহ থিয়েটার এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদানসহ দেশের অন্যতম টিভি চ্যানেল এন.টি.ভি ২০১৫ সনে শিল্পীর বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্মের উপর একটি প্রতিবেদন প্রচার করে। ময়মনসিংহ থিয়েটার এসোসিয়েশনের সভাপতি ও বহুরূপী নাট্য সংস্থার সচিব নাট্য ব্যাক্তিত্ব শাহাদাত হোসেন খান হিলু প্রয়াত শিল্পীর আত্মার শান্তি কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।