| |

ডলার প্রতারক আখিঁ গ্রেফতার

ষ্টাফ রিপোটার : আন্ত;জেলা ডলার প্রতারক আখিঁ আক্তার(৩০)অবশেষে পুলিশের জালে আটকা পড়েছে। গত বুধবার রাতে কিশোরগঞ্জ জেলার বেইলী ব্রিজ মোড় থেকে নান্দইল থানার পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে। গত বৃহস্পতিবার সকালে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের(ডিবি)কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
জানা গেছে,ওই আঁিখ আক্তারের বাড়ি চাঁদপুর জেলায়। ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মাইজবাগ পাঁচপাড়া গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে থেকে বিভিন্ন এলাকার লোকজনকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে সস্তায় ডলার বিক্রির কথা বলে সর্বস্ব হাতিয়ে নেয়। এ ঘটনায় নান্দাইল ও ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একাধিক মামলার পর তাঁর দলের দুইজন প্রতারক গ্রেফতার হলেও মূল হোতা আঁিখকে গ্রেফতার করা যায়নি।
স্থানীয় সুত্র জানায়,নান্দাইল উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা দ্বীন মোহাম্মদ শওকত আলী চট্রগ্রামে বিজিবিতে চাকরি করেন। তাঁর সাথে মোবাইলে প্রেমের সর্ম্পক করে আঁিখ আক্তার। সেই পরিচয়ে সূত্র ধরে আঁখির সহযোগীর পরিচয়ে আল-আমিন ব্যক্তিগত সমস্যার কথা বলে শওকত আলীর কাছে দুই হাজার মার্কিন ডলার মাত্র এক লাখ টাকায় বিক্রির প্রস্তাব দেয়। এতে তিনি রাজী হন। গত ২১ সেপ্টেম্বর রাতে শওকত চট্টগ্রাম শহরের অল্কংার মোড় থেকে বাসে করে পরদিন (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাতটায় নান্দাইলের কানুরামপুর বাসস্ট্যান্ডে এসে আঁখি আক্তারকে ফোন করেন। কিছুক্ষণ পর আল-আমিন এসে বিজিবি সদস্য শওকতকে নান্দাইল উপজেলার বেতাগৈহর ইউনিয়নের চরশ্রীরামপুর গ্রামের মোবারকের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে বিজিবি সদস্য শওকতকে আটকিয়ে মারধর করে এক লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। এই ঘটনায় নান্দাইল থানায় একটি মামলা করা হয়। মামলায় আসামি করা হয় আঁিখ ছাড়াও তাঁর সহযোগি ছয়জনকে। অন্যদিকে ২০১৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ-চট্টগ্রাম রিলাক্স পরিবহনের সুপারভাইজার গফরগাঁও উপজেলার মশাখালি গ্রামের মো. জাহাঙ্গীর হোসেন (৪৫) আঁখি আক্তার কর্তৃক প্রতারণার শিকার হন। তাঁকেও সস্তায় মার্কিন ডলার বিক্রির প্রলোভন দেখিয়ে ঈশ্বরগঞ্জের মাইজবাগ ইউনিয়নের পাছপাড়া গ্রামের হাবুল মিয়ার (৩০) বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁকে আটকিয়ে মারধর করে চার লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় আঁিখর নেতৃত্বে প্রতারক চক্ররা। পরে লোক লজ্জার ভয়ে তিনি মামলা না করে পুলিশের উর্ধ্বতন লোকদের দিয়ে কৌশলে খোয়া যাওয়া টাকা উদ্ধারের চেষ্টা করেন। এই অবস্থায় তিনি গত ২২ সেপ্টেম্বর ঈশ্বরগঞ্জ মামলা দায়ের করেন। ওই মামলাতেও আঁিখসহ ছয়জনকে অভিযুক্ত করে মামলা করা হয়। এরপর থেকে আঁখিকে ধরতে ব্যস্ত হয়ে যায় পুলিশ। পরে প্রযুক্তি ব্যবহার করে ছট্রগ্রাম যাওয়া পথে গত বুধবার রাত সাড়ে দশটার দিকে কিশোরগঞ্জ জেলার বেইলী ব্রিজ মোড় থেকে নান্দাইল থানা পুলিশ মা ও শিশু সন্তানসহ আঁখিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।