| |

নান্দাইলে রাস্তার পাগলী নবজাতকের মা তবে বাবা কে ॥ এর দায় কার ?

নান্দাইল  প্রতিনিধি: সমাজ যখন আধুনিকতার স্পর্শে নবদিগন্তের নতুন সূচনা করে পৃথিবীর অজানাকে জানিয়ে দিচ্ছে ঠিক তেমনি সমাজে মানবিকতা হারিয়ে বিবেকহীন স্পর্শে মানসিক ভারসাম্যহীন এক রাস্তার পাগলীর সন্তান প্রসব করে সমাজকে ঘৃণা জানায়। জানাযায়, ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় বুধবার সন্ধ্যালগ্ন সময়ে কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে (রাস্তায়) নান্দাইল পাছঁপাড়া নতুন মসজিদ এলাকায় এক অজানা পাগলীর (যুবতীর) একটি ফুটফুটে ছেলে সন্তান প্রসব করেছে। মানসিক ভারসাম্যহীন যুবতী রাস্তার পাশে প্রসব বেদনার এক পর্যায়ে সন্তান প্রসব হয়। প্রসব হওয়ার পরে পাগলী বাচ্চাটিকে বিভিন্নভাবে নড়াচড়া সহ এদিক সেদিক বাচ্চাটিকে ছুড়ে মারার বা মেরাফেলার অঙ্গভঙ্গি দেখে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্র পাগলীটিকে বলছেন একি করছেন একি করছেন। কিন্তুু যখন বুঝতে পারে যুবতীটি পাগল তখন সে চিৎকার দিয়ে আশেপাশের লোকজনকে ডাকলে একই এলাকার আবুল হোসেনের স্ত্রী বিউটি আক্তারের সহযোগীতায় যুবতীকে নান্দাইল হাসপাতালে নিয়ে বাচ্চার নাভী মূল কেটে বাচ্চাকে তিনি কোলে নেন। বিউটি আক্তার ছেলেটির নাম দিয়েছেন সাকিব। বিউটি আক্তার নিজেই ৬ সন্তানের মা। তার কোলে নিজের ৩ মাসের আরও একটি সন্তান রয়েছে। তবু বিউটি যুবতী পাগলীর সন্তানকে তার বুকের স্তন পান করান এবং তার দায়িত্ব নেন। একজন মিডিয়া কর্মী তাকে বাচ্চাটি অন্য কাউকে দত্তক নেওয়ার জন্য বললে তিনি দিতে রাজী নন। বরং উনি বলেন আমার ৬ সন্তান, আমি তাকেও আমার সন্তানের মত লালন পালন করব। তার মায়ের পরিচয় না হয় দেওয়া হবে পাগলীর পরিচয় তবে তার বাবার নাম কি হবে। সাকিবের পিতার পরিচয়ের দায়ভার কে নিবে ? কোথায় হারিয়েছে সভ্য সমাজ। এ দায় কার ? বিউটি আক্তার বর্তমানে ছেলেটির লালন পালন করছেন কিন্তুু সে কি জানতে চাইবে না যে তার বাবা কে ? সমাজে কারা এই সব সন্তানের সৃষ্টি দেয় ? সমাজে পুরুষরা কি এতোই নিলর্জ্জ, এতই কাম-ভাবাবেগপূর্ণ যেন সমাজের মাথা খেয়ে এই পাগল যুবতীকে তার লালসার শিকার বানিয়ে তাকে ব্যবহার করেছে। ছি. ছি. সেই সব পুরুষদের। একি তাদের আত্মমূল্যবোধ, একি সমাজের মূল্যবোধ। সমাজ আজ চেয়ে চেয়ে দেখছে। এরকম অনেক কাহিনী ঘটে চলেছে সমাজে। এ ব্যাপারে নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সরদার মোঃ ইউনুস আলী বৃহস্পতিবার সকালে বাচ্চাটিকে দেখে আসেন এবং বিষয়টি কথিয়ে দেখবেন এবং কোন তথ্য প্রমাণ ফেলে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।