| |

বৃদ্ধ ভারসাম্যহীন বীর মুক্তিযোদ্ধার ভ’-সম্পদ উদ্ধার ও জবরদখলকারীদের বিচারের দাবীতে কন্যার সংবাদিক সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার ঃ নিজ সহোদর ভ’-সম্পদলোভী আব্দুল মান্নান চানু’র জবরদখল থেকে ত্রিশাল উপজেলার মোক্ষপুর ইউনিয়নের কোণাবাখাইল গ্রামের অসহায় ভারসাম্যহীন, পাগলপ্রায় বীরমুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমানের ভিটেবাড়ি ফসলী জমি সহ আড়াই একর জমি উদ্ধারে ও জবরদখলকারীর দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবীতে গতকাল ৯ অক্টোবর (সোমবার) দুপুরে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন মুক্তিযোদ্ধার কন্যা স্কুল শিক্ষিকা শরিফা খাতুন। তার এই দাবী পূরণে সংশ্লিষ্ট দপ্তরসমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃংখলা বাহিনী, সাংবাদিক সমাজসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি। সাংবাদিক সম্মেলনে এক লিখিত বক্তব্য পাঠে শরীফা খাতুন বলেন, আপন চাচা ভ’-সম্পদ লোভী আবদুল মান্নান চানু ও তার সহযোগিদের অব্যাহত অত্যাচার ও নির্যাতনেই বৃদ্ধ পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন। এই সুবাদে চাচা মান্নান চানু পিতার বাড়ি ভিটাসহ সমুদয় সম্পত্তি জোর করে দখলে নেয়। এতে আমার বড় সহোদর লুৎফর বাধা হওয়ায় চাচা চানু ও তার অবৈধ কাজের সহযোগিরা পরিকল্পিত ভাবে বিষ প্রয়োগে ও গাছে ঝুলিয়ে আমার ভাইকে হত্যা করে। হত্যা মামলাটি আদালতে বিচারাধীন। হত্যার পর ওরা আমাদেরকেও হত্যার হুমকি দিয়ে জোর পূর্বক পিতার বাড়ি ভিটে জমি থেকে উচ্ছেদ করে দেয়। প্রাণ ভয়ে আমি অসুস্থ বাবা, মা ও ছোট বোনকে নিয়ে ত্রিশাল উপজেলা শহরে বাসা ভাড়া করে বসবাস করছি। এই বিষয়ে আমি ত্রিশাল থানা পুলিশকে জানিয়েছি। কিন্তু কোন সহযোগিতা পাইনি। জবরদখলে যাওয়া বাড়ি ভিটে জমি উদ্ধারে গত ০৪/০৪/১৭ইং তারিখে ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে আবেদন করলে তিনি উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভ’মি) কে গণশুনানী করে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশে সহকারী কমিশনার (ভ’মি) ১৮/০৫/১৭ইং তারিখে গণশুনানী করেন। দীর্ঘ প্রায় পাঁচ মাসেও গণশুনানীর রায় ঘোষণা হয়নি। এ অবস্থায় ২৮/০৯/১৭ইং তারিখে বিষয়টি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীকে লিখিত ভাবে জানালে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন। পুলিশ সুপার বিষয়টি আন্তরিকতার সঙ্গে দেখার জন্য ত্রিশাল থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। অদ্যাবধি ভ’-সম্পদ উদ্ধারে কার্যকর কিছু না হওয়ায় জবরদখলকারী আরো বেপরোয়া হয়ে নানা ভাবে চরম ক্ষতির হুমকি দিচ্ছে। এ অবস্থায় সরকারী সংশ্লিষ্ট দপ্তর সমুহ সহ সকলের সহযোগিতা চাই। সহযোগিতা চাই সরকারের প্রধানমন্ত্রীর। সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধার কন্যা শরীফা খাতুনের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার জেঠা আব্দুর রাজ্জাক, ফুফু হাছিনা বেগম, ছোট বোন নাসরিন সুলতানা পাপড়ী, ছোট বোন জামাই মোঃ শরিফুল ইসলাম, ছোট বোনের শ্বশুর গোলাম মুস্তুফা মন্ডল প্রমুখ।