| |

হোসেনপুরে বিএনপির সভাপতি জহিরুল ইসলাম মবিনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা জুতা মিছিল ॥ দু’গ্রুপে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

নজরুল ইসলাম খায়রুল প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলা বিএনপির কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে সংবাদ সম্মেলনের পর বিএনপির দ’ুগ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে হোসেনপুর বাজারের সিএনজি অটোরিকসা স্ট্যা-ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
সম্প্রতি জহিরুল ইসলাম মবিনকে সভাপতি করে হোসেনপুর উপজেলা বিএনপির কমিটি অনুমোদন দেয় জেলা বিএনপি। এর প্রতিবাদে সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক নূরুল আমিন পারভেজ ও তার সমর্থকরা ক্ষুব্ধ হয়ে গতকাল রোববার দুপুরে স্থানীয় মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে গঠিত কমিটি প্রত্যাখ্যান করেন। পৌর বিএনপির সাবেক আহবায়ক শফিকুল ইসলাম কাঞ্চনের সভাপতিত্বে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নূরুল আমিন পারভেজ লিখিত বক্তব্যে নব- গঠিত কমিটি ও বিএনপির সভাপতি জহিরুল ইসলাম মবিনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বলেন, আগামী সাতদিনের মধ্যে এ কমিটি বাতিল না করলে নব গঠিত কমিটিকে প্রতিরোধ এবং জেলা বিএনপিকেও হোসেনপুরে অবাঞ্ছিত করা হবে। প্রয়োজনে গণপদত্যাগের মতো কর্মসূচি দেওয়া হবে।এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ন আহবায়ক আবু বক্কর সিদ্দিক বাক্কার,সাদ্দাম হোসেন চাঁন মিয়া,মোস্তাফিজুর রহমান টুটুল,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম শহীদ,জাসাস সভাপতি মহসিন সিরাজী,জিয়া পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম মাসুদ,জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মাহবুব আলম লাভলু,যুব দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলামিন পাঠান,গোবিন্দপুর ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক রেজাউল করিম রশিদ,বিএনপি নেতা কামাল মিয়া, আজাহারুল ইসলাম স্বপনসহ তৃণমুল ও ত্যাগী বিএনপি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।
সংবাদ সম্মেলনের পর উপজেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নূরুল আমিন পারভেজ এর নেতৃত্বে একটি জুতা মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি বাজার প্রদক্ষিণ করার সময় সিএনজি অটোরিকসা স্ট্যা-ের সামনে সাদা পোশাকে পুলিশ এসে মিছিলে বাধা দেয়। এর কিছুক্ষণ পরই বর্তমান কমিটির নেতা মবিনের সমর্থকরা লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মিছিলকারীদেরকে ধাওয়া দেয়। বেশ কিছুক্ষণ উভয় গ্রুপে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। পরে হোসেনপুর থানার ওসি তদন্ত মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ নিয়ে হোসেনপুরে উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।