| |

ত্রিশালকে আধুনিক সমৃদ্ধশালী একটি আদর্শ উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলা হবে -আওয়ামীলীগ নেতা ইকবাল

রফিকুল ইসলাম শামীম :  সাবেক ছাত্র নেতা ত্রিশাল উপজেলা আওয়ামীলীগ সদস্য, বিশিষ্ট সমাজসেবক ইকবাল হোসেন ত্রিশাল উপজেলাকে আধুনিক, ডিজিটাল, স্বয়ংসম্পুর্ন ও সমৃদ্ধশালী একটি আদর্শ উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি গতকাল নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় কালে এ সহযোগিতা কামনা করেন। এ সময় তিনি ত্রিশালকে নিয়ে তার অনেক ইচ্ছা, স্বপ্ন ও ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। ঐতিহ্যবাহী এ উপজেলাকে আধুনিক ও সমৃদ্ধশালী হিসেবে গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ইতোমধ্যেই রাজনীতি ও সামাজিক ভাবে অবদান রাখা এ সফল রাজনীতিক। ইতোমধ্যে ত্রিশালের আপামর সাধারন মানুষের পাশে থেকে মানুষের সেবা প্রদান করায় জন দরদি মানুষ হিসেবে পরিচিত হয়ে পড়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ইকবাল হোসেন জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত ত্রিশালবাসীর সেবা করে যেতে চান। এ জন্য তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হবেন বলেও তিনি জানান।
ত্রিশালের জনগণের কল্যাণে নিজেকে নিবেদিত করার জন্যই উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হবেন বলে জানান। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা জানান, আগামী ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃণমূলে ইকবাল হোসেনের অবস্থান পাকাপোক্ত। এখন দলীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষা মাত্র। সূত্র মতে, তৃণমূলে ভোট এবং হাই কমান্ডের সিদ্ধান্ত যেটিই হোক না কেন চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ত্রিশালের জনগনের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনার কাজ আগে থেকেই চালিয়ে যাওয়ায় ইকবাল হোসেন এখন শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে সমাজে নিজেকে তুলে ধরতে ও সক্ষম হয়েছেন। ক্লিন ইমেজের এই নেতাকে ঘিরে ত্রিশাল উপজেলার তৃণমূল জনসাধারন বরাবরই স্বস্তি প্রকাশ করে আসছে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ইকবাল হোসেনকে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী করতে দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা একজোট হয়েছেন। ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তাকে জয়ী করতে মরিয়া হয়ে অগ্রীম মাঠে নেমেছেন দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও তৃনমুলের সাধারন সমর্থকরা। তৃণমূলে সুসংহত অবস্থানে থাকা ইকবাল হোসেনের মনোনয়ন নিয়ে সর্বস্তরের মানুষ এখন বেশ আশাবাদী। তিনি অব্যাহতভাবে উঠান বৈঠক, সভা-সমাবেশ, গণসংযোগ ও প্রচার-প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে। নির্বাচনের আরও দেরী থাকলেও তিনি ও তার সমর্থকরা নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। এখন উপজেলা জুড়ে নির্বাচনী আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন তিনি। ইকবাল হোসেন দীর্ঘদিন ধরে সারা উপজেলা জুড়েই সমাজসেবায় বিশেষ অবদান রেখে জনগণের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছেন। আগে থেকে তার প্রচেষ্টার কারনেই দিন দিন বেড়ে চলেছে তার জন সমর্থন তার সমর্থনে উপজেলাব্যাপী চলছে সরগরম প্রচারণা ও ‘ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ’ বলে খ্যাত ইকবাল হোসেন ইতোমধ্যেই একজন সফল মানুষ হিসেবে ও নিজ অবস্থানে নিজেকে করেছে প্রতিষ্ঠিত। তিনি বিভিন্ন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠাসহ সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থেকে রেখে চলেছেন তার কর্মকান্ত ও অবদান। সততা, দক্ষতা ও দায়িত্বশীলতাসহ নানান কারণেই ত্রিশাল জুড়ে ইতোমধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছেন ইকবাল হোসেন। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা জানান, সারাদেশে আওয়ামীলীগের যে সব ক্লিন ইমেজের নেতা রয়েছেন তাদের মধ্যে ত্রিশালের ইকবাল হোসেন একজন। নির্বাচনের দিন ক্ষন ঘনিয়ে না আসলেও ত্রিশালে সাধারন জনগন ও ইকবাল সমর্থকদের মধ্যে শুরু হয়েছে উৎসাহ-উদ্দীপনা। আলোচনা-পর্যালোচনা, আড্ডা ও নির্বাচনী জল্পনা-কল্পনায় জোরালোভাবেই উচ্চারিত হচ্ছে ইকবাল হোসেনের নাম। তার ব্যক্তি ইমেজ নিয়েই নির্বাচনী প্রচারণা দানা বেঁধে ওঠেছে। দিন দিন সম্প্রসারিত হয়েছে তার ভোট বলয়। দলীয় ভোট ব্যাংক ছাড়াও সাধারণ মানুষের মধ্যে তার রয়েছে ব্যাপক সমর্থন। বিশিষ্ট সমাজসেবক ইকবাল হোসেন ইতো মধ্যেই নানা কারণেই দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের আস্থা অর্জন করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় ক্রমে ক্রমে তার পক্ষে মাঠ তৈরী হয়েছে নির্বাচনী মাঠ। তার জনপ্রিয়তার কারণ সম্পর্কে লোকজন যে অভিমত দিয়েছেন তা চমকপ্রদ। ফলে ভোটের হাওয়া তার পক্ষে। এক্ষেত্রে জনমত হচ্ছে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হলে ত্রিশালে কেউ তাকে হারাতে পারবে না। ত্রিশাল উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল জুড়ে জনমানুষের মুখে একটিই শ্লোগান, ‘ইকবাল হোসেনের হাত ধরেই হবে ত্রিশালের উন্নয়ন’।