| |

ঈশ্বরগঞ্জে যুবলীগের সংবর্ধনা মঞ্চে আগুন দু’গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ঃ ১৪৪ ধারা জারি

আবুল কালাম আজাদ ঃ ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সংবর্ধনাকে কেন্দ্র করে মঞ্চে আগুন দু’গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় আহত ১০ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে । গতকাল রোববার যুবলীগের নতুন আহবায়ক কমিটিকে সংবর্ধনা দেয়াকে কেন্দ্র করে পুরাতন কমিটির নেতাকর্মীরা উপজেলা স্মৃতিসৌধে নির্মিত মঞ্চে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহরে দু’ পক্ষের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় নিরীহ দুই পথচারিসহ ১০ জন আহত হয়। আহত তারা মিয়া (৫০), আকবর আলী (৫৫) কে ঈশ্বরগঞ্জ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে গুরুতর আহত তারা মিয়াকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। এ সময় শহরের দোকান পাট বন্ধ হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ৭ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। জানা যায়, সকাল ১১টার দিকে সাবেক যুবলীগের একদল নেতাকর্মী শহরে একটি মিছিল বের করে ওই সংবর্ধনা মঞ্চে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে দু’গ্রুপের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। শহরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এলিশ শরমিন দুপুর সাড়ে বারোটায় ১৪৪ ধারা জারি করেন। দুপুর ১ টার দিকে নতুন আহবায়ককে আওয়ামীলীগ যুবলীগের নেতা কর্মীরা শতশত মোটর সাইকেল শুভাযাত্রার মাধ্যমে রামগোপালপুর থেকে ঈশ্বরগঞ্জ শহরে নিয়ে আসেন। পরে একটি আনন্দ মিছিল পাট বাজার হয়ে ৭১ মোড়ে আসার সময় সাবেক যুবলীগের নেতা কর্মীরা ধাওয়া করে। এতে দু’ গ্রুপে আবারও সংঘর্ষের রূপ নেয় । এ ঘটনায় পৌর শহরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সীমা রাণী সরকার ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এ ব্যাপারে সাবেক যুবলীগের আহবায়ক ও বর্তমান নতুন কমিটির এক নম্বর সদস্য মতিউর রহমান মতি জানান নতুন কমিটিতে জামাত ও স্বাধীনতা বিরোধী লোকজনকে সদস্য করে আহবায়ক কমিটি গঠন করায় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংঠনের বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা মঞ্চে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ নতুন কমিটি বিলুুপ্ত না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন অব্যহত থাকবে বলে তিনি জানান। অপরদিকে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান সুমন জানান, নতুন কমিটিতে সাবেক কমিটির আহবায়ক মতিউর রহমানকে এক নম্বর সদস্য করে গত ২২ জানুয়ারী ৩৩সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন দিয়েছে জেলা যুবলীগ কমিটি। নতুন কমিটিতে জামাত কিংবা স্বাধীনতা বিরোধী পরিবারের কোন সন্তান নেই। আমরা উপজেলা আওয়ামীলীগ যুবলীগসহ সকল অঙ্গসংঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে শহরে আনন্দ মিছিল করেছি। আমাদের শান্তিপূর্ন মিছিলে সাবেক কমিটির নেতাকর্মীরা হামলার চেষ্টা চালায়। কিন্তু নতুন কমিটির সদস্যরা কোনরকম সংঘাতে লিপ্ত না হয়ে শান্তিপূর্নভাবে আনন্দ মিছিল সমাপ্ত করেছে। শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।