| |

বিড়ি শিল্প দ্রুত বন্ধ না করা এবং সর্বক্ষেত্রে বৈষম্য দুর করার প্রতিবাদে সমাবেশ ও গণস্বাক্ষর অনুষ্ঠিত

স্টাফ রির্পোটার ঃ বিড়ি শিল্প দ্রুত বন্ধ না করা এবং সর্বক্ষেত্রে বৈষম্য দুর করার প্রতিবাদে প্রতিবাদ সমাবেশ ও গণস্বাক্ষর করেছে ঢাকা অঞ্চল ময়মনসিংহের বিড়ি শ্রমিক ও কর্মচারী, তামাকচাষী, ব্যবসায়ী, বিড়ি ভোক্তা এবং সাধারণ জনগোষ্ঠি। গতকাল ২৪ এপ্রিল মঙ্গলবার সকালে ময়মনসিংহ শহরের কাচারীঘাট সাহেব আলী পার্ক থেকে প্রতিবাদ মিছিল করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ করে কাচারী জিরো পয়েন্টে এসে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। এসময় বক্তারা বলেন, আগামী ২ বছর অর্থাৎ ২০২০ সালের মধ্যে বিড়ি শিল্প বন্ধ করে দেওয়া হবে আর ২০৩৮ সালের মধ্যে সিগারেট শিল্প বন্ধ করে দেওয়া হবে অর্থমন্ত্রী বক্তব্যে কেন এই বৈষম্য? তারা আরো বলেন, যেখানে পাশ্ববর্তী দেশ ভারতে প্রতি হাজার বিড়িতে ১৪ টাকা আর বাংলাদেশে প্রতি হাজারে ২৫৬ টাকা সরকারকে ভ্যাট দিতে হয় কেন এই বৈষম্য? সিগারেটকে লালন করা আর বিড়ি শিল্পকে ধংস করা চলবেনা। শেখ হাসিনার বাংলাদেশে শ্রমিক বাঁচলে দেশ বাঁচবে। এই বাংলাদেশে বিড়ি শিল্পকে ধংস করে বিদেশী মালিকানা সিগারেটকে লালন করার মত বৈষম্য বাংলাদেশের শ্রমিকরা মেনে নিবেনা। দুমপান বন্ধ করলে বিড়ি সিগারেট এক সাথে বন্ধ করতে হবে।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন ময়মনসিংহ জেলা শাখার কার্য্যকরী সভাপতি কমল বসাক, মনির হোসেন চৌধুরী, জসিম উদ্দিন, নাজমূল ইসলাম, মাহমুদুল করিম, বিড়ি ভোক্তা রইচ উদ্দিন, ইজাহারুল ইসলাম, রুহুল আমিন, বিড়ি শ্রমিক ফজলুল হক, হাফিজুর রহমান প্রমুখ। প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে কাচারী জিরো পয়েন্টে গণস্বাক্ষর কর্মসুচীর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন ময়মনসিংহ জেলা শাখার কার্য্যকরী সভাপতি কমল বসাক।