| |

ছাত্রী উত্ত্যক্ত কালে দুই বখাটেকে গণধোলাই

গৌরীপুর প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার অচিন্তপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামে মঙ্গলবার বিকালে ৭ম শ্রেণি পড়–য়া এক স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার সময় আইয়ুব নবী আকরাম (১৭) ও মোঃ হাবিব মিয়া (১৫) নামে দুই বখাটেকে গ্রামবাসী গণধোলাই দিয়েছে। অভিযুক্ত ওই দুই বখাটের বাড়ি একই ইউনিয়নের চড়াকোনা গ্রামে।
জানা যায়, অচিন্তপুর ইউনিয়নের ড.এম. আর করিম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে স্কুলে যাতায়াতের সময় প্রতিদিন উত্ত্যক্ত করতো চড়াকোনো গ্রামের আবু কালামের ছেলে বখাটে আইয়ুব নবী আকরাম। এসব বিষয় নিয়ে ওই স্কুলছাত্রী প্রতিবাদ করলে আকরাম তাকে মারধরের হুমকি দিতো। মঙ্গলবার স্কুল ছুটির পর ওই ছাত্রী বাড়িতে আসার পথে আকরাম তাঁর বন্ধু হাবিবকে সাথে নিয়ে তাকে উত্ত্যক্ত করা শুরু করে। এক পর্যায়ে উত্ত্যক্ত করতে করতে ওই দুই বখাটে ওই স্কুল ছাত্রীর ওড়না কেড়ে নেয়ার চেষ্টা চালায়। পরে গ্রামবাসী খবর পেয়ে ওই বখাটেকে গণধোলাই দিয়ে আটকে রাখে। পরে ভবিষ্যতে আর কোনো সময় স্কুলছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করবেনা এই মর্মে গ্রাম্য সালিশে অঙ্গীকার করে অভিযুক্ত দুজনকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ছাড়িয়ে নেয় তাঁদের অভিভাবকরা।
স্কুল ছাত্রী বলেন, স্কুলে আসার পথে প্রায়ই আকরাম আমাকে উত্ত্যক্ত করতো, অশ্লীল কথা বলতো। আমি তাঁর কথার জবাব না দিলে মারধরের হুমকি দিতো। গতকাল বিকালে স্কুল ছুটির পর আকরাম ও আরেকটি ছেলে আমাকে উত্ত্যক্ত করতে করতে বাড়ি পর্যন্ত চলে আসে।
আকরাম বলেন, আমি ইভটিজিং করিনি। এই গ্রামে বাঁশ কিনতে আসার পর স্থানীয়রা আমাকে আটকে রাখে।
হাবিব বলেন, গতকাল বিকালে আকরাম আমাকে ডেকে এই গ্রামে নিয়ে আসে। সে স্কুলছাত্রীর সাথে ইভটিজিং করেছে। কিন্তু আমি কাউকে ইভটিজিং করিনি।
গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার আহমদ বলেন, উত্ত্যক্তের ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।