| |

ঝিনাইগাতী বর্ষা মৌসুমকে সামনে রেখে চাঁই বিক্রির ধুম

ঝিনাইগাতী সংবাদদাতা :আসছে বর্ষাকাল গ্রাম বাংলায় ঐতিহ্যবাহি একটি নাম চাঁই । শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলায় বর্ষা মৌসুমকে সামনে রেখে মাছ ধরার ফাঁদ(চাঁই) বিক্রির ধুম পড়েছে । সপ্তাহে ২দিন রবিবার ও বুধবার বাজার হওয়ায় চাঁইয়ের আমদানিতে রাস্তার পার্শ্বে বিক্রির ধুম পড়ে যায় । আসন্ন বর্ষা মৌসুমে চারদিকে থৈথৈ পানি আর পানি এই সুযোগে মাছ ধরার ফাঁদ পেতে রবে গ্রামের মানুষরা । ছোট ছোট মাছ ধরা পড়বে চাঁইয়ের ফাঁদে । এই মাছ খেতে খুবই সুস্বাধু মাছ গুলো পাওয়ার জন্যে ক্রেতারা বাজারে ঘন্টার পর ঘন্টা উপেক্ষা করে থাকে । চাঁই বিক্রেতা আয়নাল হক জানায় বর্ষায় চাঁইয়ের চাহিদা বেশী এ সময় কৃষকরা মাছ ধরার জন্যে আগ্রহে বসে থাকে তাই চাঁই বিক্রির ধুম পড়েছে আমরাও চাঁই বিক্রি করে জিবিকা নির্বাহ করে থাকি । এই সময়ের চাঁইয়ের চাহিদা বেশী থাকায় বিক্রি হচ্ছে দেদারছে । চাঁই ক্রেতা কৃষক মহির উদ্দিন জানান মাছ ধরার একটি শখের সময় বর্ষা মৌসুম । চাঁই ক্র্য় করে নিয়ে যাচ্ছি রাতের বেলায় মাছ ধরার ফাঁদটি পেতে রাখবো সকালে ভোর বেলায় যেয়ে তুলে দেখবো চাঁই ভর্তি মাছ । মাছগুলো ছোট হলেও এর স্বাধ অন্য রকম । বড়/ছোট বিভিন্ন ধরণের চাঁই বাজারে বিভিন্ন দামে পাওয়া যায় । ছোট একটি চাঁইয়ের মুল্য ১০০ থেকে ১২০ টাকা বড় হলে আরো দাম বৃদ্ধি পায় । এ ব্যাপারে ঝিনাইগাতী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস,এম আমিরুজ্জামান লেবু জানান আসছে পুরোদমে বর্ষা মৌসুম উপজেলার সবত্রে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে চাঁই পেতে মাছ শিকার করবে কৃষকরা । চাঁই শিল্পকে ধরে রাখতে হলে তাদেরকে সহযোগিতা করতে হবে । এই বাঁশ শিল্পের সাথে উপজেলার অনেকেই জড়িত হয়ে সংসার চালাচ্ছে । বিশেষ করে আদিবাসীরা কৃষকদের ধানকাটা শুরু হলে বাঁশ দিয়ে বিভিন্ন জাতের সরজ্ঞাম তৈরী করে বাজারে বিক্রি করে থাকে । মাছ ধরার ফাঁদ এখন বাজার ভরপুর বলে জানান ।