| |

ময়মনসিংহে ডিবি পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত ॥ দুই পুলিশ আহত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ময়মনসিংহ শহরের আলিয়া মাদ্রাসা এলাকায় শনিবার ভোররাতে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে বহু অপরাধের হোতা পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ও ছিনতাইকারী আঃ ছালাম ওরফে কালা চান নিহত হয়েছে। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে রামদা ও গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। আহত পুলিশ সদস্যরা হলো ডিবি পুলিশের কন্সটেবল কাওসার হাবিব ও শফিকুল ইসলাম। নিহত কালাচানের বাড়ী শহরের বাঘামারা মেডিকেল গেইট এলাকায়।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ আশিকুর রহমান জানান, শনিবার রাত দেড়টার দিকে ডিবি পুলিশের একটি দল শহরের র‌্যালির মোড়ে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ও চিহিৃত ছিনতাইকারী কালা চানকে একটি ধারালো ছুরি ও ৫০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত কালাচানের দেওয়া তথ্য মতে, পরে তাকে নিয়ে গভীর রাতে (পৌনে তিনটা) মাদক ব্যবসায়ী সিরাজকে গ্রেফতার এবং মাদক উদ্ধার অভিযানে যাওয়ার সময় শহরের আলিয়া মাদ্রাসা মাছ বাজার রোডে কালাচানের অন্যান্য সঙ্গী ও মাদক ব্যবসায়ী সিরাজের নেতৃত্বে ৭/৮জন গোয়েন্দা পুলিশের গাড়ির উপর হামলা করে এবং গুলি ছুড়ে কালাচানকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে উভয় পক্ষের মাঝে গুলি বিনিময় হয়। এদিকে পুলিশের গাড়িতে থাকামাদক ব্যবসায়ী ও ছিনতাইকারী কালাচান কৌশলে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশের গুলিতে কালাচান গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে পড়ে যায়। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে তাকে গুরুতর অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বড় রাম দা দুইটি গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে নিহত কালাচানের বিরুদ্ধে অস্ত্র, খুন, ছিনতাই, মাদক ও চুরির কমপক্ষে ১০/১২টি মামলা রয়েছে। ডিবির ওসি আরো জানান, এ বন্ধুকযুদ্ধে পুলিশের পক্ষ থেকে ৬ রাইন্ড গুলি করা হয়েছে।
ডিবির ওসি আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে অভিযানে ডিবির এসআই ফারুক আহম্মেদ, আনোয়ার হোসেন, পরিমল চন্দ্র দাস, মোবারক হোসেন, আক্রাম হোসেনসহ অন্যান্যরা অংশ নেন। মাদক ব্যবসায়ীর সাথে বন্ধুকযুদ্ধ এবং আসামী ছিনতাইয়ের চেষ্ঠার খবর পেয়ে কোতোয়ালী পুলিশের ওসি তদন্ত খন্দকার সাকের আহমদ, ১নং ফাঁড়ির টিএসআই আনোয়ার হোসেনসহ অন্যান্যরা এ অভিযানে অংশ নেন বলেও ওসি আশিকুর রহমান জানান।