| |

চর ঈশ্বরদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক দায়েরকৃত মামলার প্রতিবাদে ময়মনসিংহ পৌর মেয়রের সাংবাদিক সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার ঃ ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ৬ নং চর ঈশ্বরদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুর্শেদুল আলম জাহাঙ্গীর গত ৬ মে (রোববার) ময়মনসিংহের বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ১ নং আমলী আদালতে ভূমিহস্তান্তর কর আত্মসাৎ সংক্রান্তে যে মামলাটি (নং-৪৪১/১৮) দায়ের করেছেন তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার (১০ মে) বিকেলে ময়মনসিংহ পৌরসভার মিলনায়তনে এক সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন পৌর মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু। আহুত এই সাংবাদিক সম্মেলনে মেয়র এক লিখিত প্রতিবাদ বক্তব্য পাঠে বলেন, আমার ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন এবং পৌরসভার দীর্ঘদিনের গৌরবের ইতিহাসকে ম্লান করার লক্ষ্যে সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে মিথ্যা, বানোয়াট, বিভিত্তহীন-কাল্পনিক কাহিনী দিয়ে মামলাটি দায়ের করেন ইউপি চেয়ারম্যান মুর্শেদুল আলম জাহাঙ্গীর। প্রতিবাদ বক্তব্যে মেয়র বলেন, সরকারী বিধিবদ্ধ নিয়মানুযায়ী পৌরসভার সকল প্রকার কার্যাদি সম্পন্ন হয়ে আসছে এবং হচ্ছে। পৌরসভার বিধি বহির্ভূত কোন প্রকার অর্থ আত্মসাতের ঘটনা ঘটেনি। গোপনীয় ভাবে কোন প্রকার জোর করে বা বল প্রয়োগে ভূমি উন্নয়ন বা হস্তান্তর কর পৌরসভার নির্দ্ধারিত ব্যাংক হিসাবে জমা করা হয়নি। জমাকৃত অর্থ কোন ব্যক্তির নামীয় হিসাবে জমা হয়নি। আর প্রাপ্ত করের এই অর্থ যথানিয়মে ব্যয় হয়। উল্লিখিত ভূমি হস্তান্তর করের অর্থ স্থানীয় সরকার বিভাগের পৌর-১ শাখা কর্তৃক ২০১৬ ইং সালের ২৩ আগস্ট প্রকাশিত পৌর এলাকা সম্প্রসারণ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনের আলোকে পৌরসভার নির্দ্ধারিত ব্যাংক হিসাবে জমা হয় সদর সাব রেজিষ্ট্রি অফিস কর্তৃক। পরবর্তীতে স্থানীয় সরকার বিভাগ হতে বিষয়টি যখন স্পষ্ট করা হয় তখন হতেই উক্ত খাতে অর্থ জমা প্রদান বন্ধ করে দেয় সাবরেজিষ্ট্রি অফিস। অপরদিকে ইউনিয়ন পরিষদ সমুহের ভূমি হস্তান্তর করের পাওনা থেকে যাযক্রমে ৫০ লাখ টাকাও ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা প্রকৌশলী কর্তৃক যৌথ স্বাক্ষরে পরিচালিত ব্যাংক হিসাবে চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করা হয়। এই কার্যক্রম চলমান রয়েছে। মামলাটির বাদী গত ০১/০৪/১৮ ইং তারিখের উল্লেখ করে ইউনিয়ন পরিষদ সমুহের পাওনা ভূমি হস্তান্তর বা উন্নয়নকর ফেরত দেয়ার ব্যাপারে অস্বীকার করার কথা বলার পরেও ৩০/০৪/১৮ ইং তারিখে পূর্বের (ধারাবাহিকতায়) আরো ১০ লাখ টাকা চেকের মাধ্যমে হস্তান্তর করা হয়। সুতরাং মামলার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যাচার, বানোয়াট, ষড়যন্ত্রমূলক বলেই এর তীব্র নিন্দা, ঘৃনা প্রতিবাদ করছি এবং এ বিষয়ে পৌরসভার সকল নাগরিকের সজাগ দৃষ্টি কামনা করছি। সাংবাদিক সম্মেলনে মেয়রের সঙ্গে পৌরসভার প্যানেল মেয়র, কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীগন উপস্থিত ছিলেন।