| |

পূর্বধলায় যুবলীগ নেতা গ্রেফতারের প্রতিবাদে সড়ক ও রেলপথ অবরোধ।

তিলক রায় টুলু পূর্বধলা থেকেঃ
বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নেত্রকোনা ডিবি পুলিশ পূর্বধলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক নুরুল অমীন খান পাঠান শওকত স্থানীয় সাংসদের এপিএস প্রভাষক সেলিম জাহাঙ্গীর, এবং মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড কাউন্সিলের সাধারন সম্পাদক আঃ আওয়াল তালুকদারকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনার প্রতিবাদে শুক্রবার সকাল থেকে দলীয় নেতা কর্মীরা পূর্বধলা-জারিয়া সড়ক ও শ্যামগঞ্জ -নেত্রকোনা সড়ক ও ঢাকাগামী বলাকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি অবরোধ করে রাখে। প্রায় তিন ঘন্টা সময় দলীয় নেতাকর্মীরা এ অবরোধ কর্মসূচী পালন করে। পরে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সাথে এ ঘটনার সুষ্ট তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাসে পরিপেক্ষিতে অবরোধ কর্মসূচী তুলে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক এস আই শরিফুল ইসলাম কে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন ডিবি পুলিশের ওসি আমীর তৈমুর ইলী ।
যুবলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান বুলবুল জানান কোন রকম গ্রেফতারী পুরুয়ানা ছাড়াই নেত্রকোনা ডিবি পুলিশ বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পূর্বধলা উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক নূরুল আমীন খান পাঠান শওকত কে বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে । এ খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় সংসদ সদস্যেসের এপিএস প্রভাষক সেলিম জাহাঙ্গীর ও মুক্তযোদ্ধা সন্তান কমান্ড কাউন্সিসিলের সাধারন সম্পাদক আঃ আওয়াল তালুকদার যুবলীগ নেতাকে গ্রেফতারের ব্যাপারে জানতে থানার সামনে গেলে ডিবি পুলিশ পড়ে তাদেরকেও গ্রেফতার করে। পরে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের নির্দেশে তাদেরকে থানা পুলিশের হেফজতে রেখে চলে আসে। এদিকে দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের খবর ছড়িয়ে পড়লে নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে পূর্বধলা থানা পুলিশ উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের নিদের্শে তাদের ছেড়ে দেন।
যুবলীগের সাধারন সম্পাদক নূরুল আমীন খান পাঠান শওকত জানান আমার বিরুদ্ধে কোন রকম গ্রেফতারী পুরোয়ানা জাড়াই নেত্রকোনা ডিবি পুলিশ একজন সন্ত্রাসী কে গ্রেফতার করলে যেভাবে এটাক করে নেত্রকোনা ডিবি পুলিশ আমার উপর সেই রকম অত্যাচার করেছে। আমার বাড়ীর লোকজনের সাথে খারাপ ব্যাবহার করেছে, আমার দুই হাতে হ্যানক্যাপ পড়িয়েছে, এসপি’র করা নির্দেশ আছে আমাদের কে গ্রেফতার করার জন্য এবং আমার বাসার দরজা জানালায় লাথি মেরে আতঙ্ক সৃষ্টি করে আমার কে লাঞ্চিত করা হয়েছে।
নেত্রকোনা ডিবি পুলিশের ওসি আমীর তৈমুর ইলী এ অভিযানের কথা স্বীকার করে বলেন উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের নির্দেশে সুনিদিষ্ঠ অভিযোগ ও বিধি মোতাবেগ এ অভিযান করা হয়েয়েছে বলে তিনি দাবী করেন। কেন এস আই শরিফুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে সে ব্যাপারে তিনি বলেন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।
পূর্বধলা থানার অফিসার ইনচার্জ বিল্লাল উদ্দিন জানান নেত্রকোনা ডিবি পুলিশ গভীর রাতে তাদেরকে গ্রেফতার করে থানা হেফাজতে দিয়ে যায়। তাদের বিরুদ্ধে পূর্বধলা থানায় কোন মামলা নেই। পরে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সাথে আলাপ করে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।