| |

বদলে যাচ্ছে ধোবাউড়ার অজোঁপাড়া গ্রামের দৃশ্য,মানুষ স্বপ্ন দেখছে উন্নত জীবনের

আবুল হাশেম,ধোবাউড়া(ময়মনসিংহ) থেকে ঃ
গ্রাম বলতে অজোঁপাড়া গ্রাম। রাস্তা নেই,বিদ্যুুৎ নেই,ব্রীজ নেই এসবকেই বুঝানো হতো।কিন্তু সময়ের পালাক্রমে বদলে যাচ্ছে সেই অঁজোপাড়া গ্রামের দৃশ্য।মানুষও স্বপ্ন দেখছে উন্নত জীবনের ।বর্তমানে ধোবাউড়া উপজেলার সমগ্র এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ চলছে দ্রুত গতিতে।যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ পৌছায়নি সেসব এলাকায় পৌছে যাচ্ছে সরকারী উদ্যোগে সৌরবিদ্যুতের আলো।উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা যায় ২০১৫-১৬ এবং ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ধোবাউড়ায় প্রত্যন্ত এলাকায় ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে মোট ২০ টি।দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ঢেউটিন বিতরণ করা হয়েছে ২৬০ বান্ডিল এবং নগদ ৩ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে।এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা যায় ধোবাউড়া থেকে ৭ টি ইউনিয়নের যোগাযোগ রাস্তা পাকাকরণ,বেশ কিছু বিদ্যালয় ভবন,ইউনিয়ন পরিষদ ভবন,দক্ষিণ মাইজপাড়া ইউনিয়নে রাস্তা পাকাকরন ও ব্রীজ নির্মাণের কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। এসব কাজ চলছে ময়মনসিংহ-১,ধোবাউড়া হালুয়াঘাট আসনের সংসদ সদস্য মি.জুয়েল আরেং এর সার্বিক সহযোগিতা ও তত্বাবধানে।ধোবাউড়াবাসীর দীর্ঘদিনের প্রানের দাবি কালিকাবাড়ি ব্রীজ নির্মাণ কাজ এমপি জুয়েল আরেং এর সহযোগিতায় খুব শীগ্রই শুরু হবে বলে জানান উপজেলা প্রকৗশলী শাহিনূর ফেরদৌস।এছাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে ধোবাউড়া উপজেলার যেকোন সমস্যা সমাধানে সহযোগিতা পাচ্ছেন জনগন। এতকিছুর পরও ধোবউড়াবাসীর দুর্ভোগের অপর নাম এখন রাস্তাঘাটে চলাচল করা। উপজেলা সদর থেকে গোয়াতলা পর্যন্ত রাস্তাটি সংস্কার হলে মানুষের দুর্ভোগ কিছুটা লাগব হতো। এব্যাপারে জানতে চাইলে ধোবাউড়া হালুয়াঘাট আসনের সংসদ সদস্য মি.জুয়েল আরেং বলেন বর্তমান সরকার জনগণের সরকার,উন্নয়নই যার একমাত্র লক্ষ। রাজনীতি করি জনগণের জন্য,তাই এই উন্নয়নের ধারা অব্যহত থাকবে।