| |

হালুয়াঘাটে বিস্কিট খাওয়ানোর প্রলোভনে প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ

জোটন চন্দ্র ঘোষ,হালুয়াঘাট ঃ হালুয়াঘাটে বিস্কিট খাওয়ানোর প্রলোভনে প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থী সাত বছরের এক শিশু কন্যাকে দুই সন্তানের জনক কর্তৃক ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, উপজেলার ধারা ইউনিয়নের ধারা-লালারপাড় গ্রামের লালারপাড় ব্য্রাক স্কুলের প্রথম শ্রেণীর শিশু শিক্ষার্থীকে কয়রাহাটি গ্রামের আব্দুল হেকিমের লম্পট পুত্র দুই সন্তানের জনক মুঞ্চুরুল (৩০) গত ৩ জুন রবিবার সন্ধায় বিস্কিট খাওয়ানোর প্রলোভনে স্থানীয় রবিউল আওয়াল (রবি) এর টিনশেড ঘরের পিছনে নিয়ে ধর্ষণ করেন। ধর্ষিতা শিশু ও তার মা সাংবাদিকদের জানায়, ৩ জুন সন্ধায় ধারা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ চত্বরে বিএনপি’র ইফতার মাহফিলে ইফতার খাওয়ার পর বাড়ি ফেরার পথে লম্পট মুঞ্চুরুল শিশুটির পিছু নেয় পরে ধারা মুরগী মহালের এক মোদি দোকান থেকে বিস্কিট কিনে দেওয়ার প্রলোভনে শিশুটিকে ধর্ষন করে।

শিশুটির মা অশ্রুসিক্ত কন্ঠে আরো বলেন, তার স্বামী ভারায় অটোরিক্সা চালিযে জীবিকা নির্বাহ করেন। শিশুটি ঘর থেকে দুদিন যাবত ঘর থেকে বাহিরে না যাওয়া ও অসুস্থ্যতা বোধ করার কারণে তারা বকাঝকা করে। এক পর্যায়ে শিশুটি কেঁদে কেঁদে বিষয়টি খুলে বলে। তাৎক্ষনিক এলাকার প্রতিবেশী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে ঘটনাটি শিশুর পরিবারের সদস্যগণ অবগত করেন। পরে ঘটনার দুইদিন পর ৫ জুন মঙ্গলবার রাতে হালুয়াঘাট থানায় এসে হালুয়াঘাট সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীর পিপিএম এর হস্তক্ষেপে ধর্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এ ঘটনায় জড়িত ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন স্থানীয় এলাকাবাসী ও ভূক্তভোগী পরিবার। এ ঘটনার পর থেকেই ধর্ষক পলাতক রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানায়।

এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার এ প্রতিবেদক কে বলেন, ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যসহ শিশুটির পিতা মাতা থানায় এসে ঘটনাটি অবগত করেছেন। বর্তমানে শিশুটি পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ধর্ষণকারীকে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে তিনি জানান।