| |

ময়মনসিংহে ১২ হাজার পিচ ইয়াবাসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী মোতালেব গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) শুক্রবার মধ্যরাতে অভিযান পরিচালনা করে শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী আব্দুল মোতালেবকে ১২ হাজার পিচ ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে। শহরের উত্তরা নদীর পাড় এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় অপর ইয়াবা ব্যবসায়ীরা কৌশলে পালিয়ে যায়। তার বাড়ি শহরের পুলিশ লাইন উত্তরা আবাসিক এলাকায়।
ডিবি পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, পুলিশ লাইন উত্তরা এলাকা দীর্ঘদিন ধরে আব্দুল মোতালেব নামের এক ব্যক্তি বসবাস করে আইন শৃংখলা বাহিনীর একাধিক দপ্তরের পরিচয় দিয়ে মাদক, ইয়াবার ব্যবসাসহ নানা অপরাধ করে আসছে। তার এ মাদক ব্যবসার সাথে পুলিশের একাধিক সদস্য জড়িত রয়েছে। শুক্রবার মধ্যরাতে ইয়াবা ব্যবসায়ী আব্দুল মোতালেবসহ একটি সিন্ডিকেট শহরের পুলিশ লাইন নদের পাড় এলাকায় ইয়াবার বিশাল চালান ক্রয় বিক্রয় করছে। এ ধরণের খবর পেয়ে ডিবির ওসি আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে ডিবির একটি শক্তিশালী টিম তাৎক্ষনিক অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় ইয়াবা ব্যবসায়ী মোতালেবকে গ্রেফতার করা হয়। পরে গ্রেফতারকৃত মোতালেবের সাথে থাকা ব্যাগ থেকে ৩টি পুটলায় ১২ হাজার পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্যরা কৌশলে পালিয়ে যায়। এর মধ্যে ময়মনসিংহ কোর্ট পুলিশের কর্মরত পুলিশ কন্সটেবল আল আমিন নামের একজন রয়েছে। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশ বাদি হয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় মাদকআইনে মামলা দায়ের করেছে।
অভিযানে এছাড়াও ডিবির পুলিশ পুরিদর্শক (তদন্ত) মোখলেছুর রহমান, এসআই আনোয়ার হোসেন, আক্রাম হোসেন, আজিজুল হক, পরিমল চন্দ্র দাস, এএসআই আল আমিন, তারেক হাসান, জিল্লুর রহমানসহ অন্যান্যরা সাথে ছিলেন।
ঈুলিশ লাইন উত্তরা এলাকার একাধিক বাসিন্দা জানান, মোতালেব নানা অপরাধের সাথে জড়িত। তার বিরুদ্ধে ইয়াবা, মাদক ব্যবসা, ডাকাতিসহ খুনের অভিযোগে মামলা রয়েছে। সে দীর্ঘ দিন ধরে পুলিশ ও র‌্যাবের সোর্স পরিচয়ে ইয়াবা ও মাদক ব্যবসা করে আসছে। ডিবি, কোতোয়ালী, ফাঁড়ি পুলিশ ও র‌্যাবের একাধিক কর্মকর্তার সাথে আতাত করে মোতালেব মাদক ব্যবসা করে আসছে। ডিবি ও র‌্যাবের অনেক কর্মকর্তা মোতালেবের বাড়িতে আসা যাওয়া করত বলে উত্তরাবাসি দাবী করেন। এ দুটি দপ্তরের একাধিক কর্মকর্তা মোতালেবের মাদক ব্যবসার সহযোগীতা করে অডেল টাকার মালিক বনে গেছেন।
ডিবির ওস আশিকুর রহমান জানান, মাদকের সাথে কোন ধরণের আপোষ নেই। মাদক ব্যবসায়ী যেই হোক না কেন তাকে ছাড় দেয়া হবেনা। গ্রেফতারকৃত মোতালেবের স্বিকারোক্তি মোতাবেক পালিয়ে যাওয়া অপর ইয়াবা ব্যবসায়ী ময়মনসিংহ সিজেএম কোট পুলিশ কন্সটেবল আল আমিনকে সহ আসামী করে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।