| |

নান্দাইলে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার স্বামী পলাতক

এহতেশামউল হক শাহিন, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার পৌরসভা এলাকার ঝাউগড়া গ্রাম থেকে বৃহস্পতিবার (২১জুন) এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবারের দাবি স্বামী শ্বাসরোধ করে হত্যার পর মরদেহ ফাঁিসতে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার চালায়। এ ঘটনার পর স্বামীসহ পরিবারের লোকজন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছে। জানাযায়, নান্দাইল পৌরসভার মুন্সিপড়া মহল্লার মো. সাইফুল ইসলামের মেয়ে ইয়াসমিন আক্তার(১৯)। গত ৮ মাস আগে উপজেলার আঁচারগাও ইউনিয়নের ঝাউগড়া গ্রামের রতন মিয়ার ছেলে মো. বাকী বিল্লাহ্র সাথে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে। নিহত ইয়াসমিনের মা অনুফা আক্তার জানান,বাকী বিল্লাহ্ প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাঁর মেয়েকে তুলে নিয়ে বিয়ে করে। এরপর থেকে মেয়ের সাথে কোনো যোগাযোগ রক্ষা করতে দেয়নি বাকী বিল্লাহ। এর মধ্যে মেয়ে চুপিসারে বেশ কয়েক বার বাড়িতে এসে যৌতুক দাবিতে বিভিন্ন সময় স্বামীর নির্যাতনের কথা বর্ণনা করে। এই অবস্থায় ঈদের কয়েকদিন আগে মেয়ে স্বামীর বাড়িতে যায় ঈদ করতে। তিনি জানান, গত দুই দিন ধরে মেয়ে তাঁকে ফোন করে জানায় টাকা না দেওয়ায় স্বামী তাঁকে মারধর করছে।
বৃহস্পতিবার ফের তাঁকে ফোন করে বলে আজকের মধ্যে চাহিদা মতো টাকা না দিলে অবস্থা খারাপ করার হুমকী দিচ্ছে। এর ঠিক দুই ঘন্টা পর মেয়ের স্বামী বাকী বিল্লাই তাঁকে ফোন করে জানায় ইয়াসমিন রাগ করে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, নান্দাইল মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আবদুস ছাত্তার। তিনি জানান, লাশটি বসত ঘরের মাঠিতে শোয়ানো অবস্থায় দেখতে পান। লাশের গলায় অর্ধ চন্দ্রাকৃতির দাগ দেখতে পান। কিন্তু প্রতিবেশীদের সাথে কথা বলে জানতে পারেন লাশটি ঘরের আড়ায় ঝুলানো ছিল। তবে গৃহবধূর শ্বশুরবাড়ির কাউকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি।