| |

ইউএনও, মেয়র, প্রধান শিক্ষক সহ ৯ বিরুদ্ধে মামলা গৌরীপুরে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন স্থগিত

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা ॥
ময়মনসিংহের গৌরীপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলার কারণে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। মামলায় আদালতের কারণ দর্শাইবার নোটিশ জারির পর বুধবার(২৭জুন) দুপুরে নির্বাচন স্থগিত করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও প্রিজাইডিং অফিসার সাইফুল আলম। তিনি নির্বাচন স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালতের নোটিশ জারির পত্র প্রাপ্তির পর নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার(২৮জুন) এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।
গোপনে তফসিল ঘোষণা ও ভোটার তালিকায় ত্রুটি সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে গত রোববার ময়মনসিংহ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে একটি মামলাটি দায়ের করেন স্কুল শিক্ষার্থীর দুই অভিভাবক ফারুক আহাম্মদ ও আব্দুল কাদির। মামলায় আসামি করা হয় স্কুলের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক সরকার, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফারহানা করিম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার সাইফুল আলম সহ ৯জনকে। গত সোমবার আদালতে মামলার শুনানি শেষে বাদী পক্ষের নির্বাচন স্থগিতের নিষেধাজ্ঞা প্রার্থনার প্রেক্ষিতে বিবাদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও স্কুলের প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শাইবার নোটিশ জারি করা হয়েছে। নোটিশ প্রাপ্তির দুই দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।’ অন্যথায় দরখাস্তের এক তরফা শুনানি ও বিচার হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।
নির্বাচনে অভিভাবক সদস্য পদে ৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন। ১হাজার ২১৮জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করার কথা ছিল। এদিকে উপজেলা সদরের একমাত্র বালিকা বিদ্যালয়ের নির্বাচনকে ঘিরে প্রচার-প্রচারণাও বেশ জমে উঠেছিল।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক এনামূল হক সরকার বলেন, নির্বাচন আয়োজন নিয়ে কোনো গোপনীয়তা ও অনিয়ম হয়নি। বিধি অনুযায়ী সকল নিয়ম মেনেই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা পরবর্তী নির্বাচনের অন্যান্য কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে। আমরা আদালত থেকে কারণ দর্শাইবার নোটিশ পেয়েছি। তবে নির্বাচনের স্থগিতাদেশের কোনো চিঠি পাইনি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফারহানা করিম বলেন, নির্বাচন কেন স্থগিত হবে না, তা ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আদালতে অবহিত করার করার জন্য আদালত নোটিশ জারি করেছে। নোটিশের পত্র প্রাপ্তির পর নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রিজাইডিং অফিসার নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে।