| |

ডিবি পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে শম্ভুগঞ্জের আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী ভেবেল বাচ্চু নিহত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ময়মনসিংহ শহরতলীর শম্ভুগঞ্জে মঙ্গলবার ভোররাতে ডিবি পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে ময়মনসিংহের আলোচিত ও চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী বাচ্চু ওরফে ভেবেল বাচ্চু নিহত হয়েছে। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে চার রাউন্ড গুলির খোসা এবং দুইশত পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ সড়কের শম্ভুগঞ্জের চৈতলামারী নামক স্থানে মাদক ব্যবসায়ীরা নিজেদের মধ্যে মাদক ভাগাভাগি করছে এ ধরণের খবরের ভিত্তিতে জেলা গোয়েন্দা পুলিেেশর ওসি আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে একটি শক্তিশালী টিম অভিযানে যায়। ঘটনাস্থলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও গুলি বর্ষন শুরু করে। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের মাঝে গুলি বিনিময় কালে পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী (ময়মনসিংহের শম্ভুগঞ্জ এলাকার আতংক ও মাদক সম্রাট) বাচ্চু ওরফে ভেবেল বাচ্চু(৪৫) গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটে পড়ে। এ সময় অন্যান্যরা পালিয়ে যায়। এদিকে বন্ধুকযুদ্ধে ডিবি পুলিশের কনস্টেবল সেলিম ও রাসেদ আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুইশত পিস ইয়াবা ও চার রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। গুরুতর আহত মাদক ব্যবসায়ী বাচ্চুকে পুলিশ তাৎক্ষনিক উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। নিহত মাদক ব্যবসায়ী বাচ্চুর নামে কোতোয়ালী মডেল থানায় ১৫টির অধিক মামলা রয়েছে বলে কোতোয়ালী ও ডিবি পুলিশ জানান। নিহত মাদক ব্যবসায়ী ভেবেল বাচ্চুর লাশ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। এছাড়া আহত পুলিশ সদস্যরা ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ লাইনস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ভেবেল বাচ্চু নিহত হওয়ার ঘটনায় শম্ভুগঞ্জ এলাকায় স্বস্থি ফিরে এসেছে। ডিবি পুলিশের ওসি আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে অভিযানে এসআই ফারুক আহমেদ, এসআই পরিমল চন্দ্র দাসসহ অন্যান্যরা অংশ নেন।