| |

ময়মনসিংহে সাংস্কৃতিক পল্লী গড়ে তোলা হবে–মেয়র টিটু

ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ইকরামুল হক টিটু বলেছেন, ঐতিহ্যবাহী মহুয়া, মলুয়া খ্যাত ময়মনসিংহ সংস্কৃতি অঙ্গনকে আরো সমৃদ্ধ করতে সাংস্কৃতিক পল্লী গড়ে তোলার লক্ষ্যে ৫ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। পৌরসভার উদ্যোগে “মেয়র নাট্য উৎসব” চালু করা হয়েছে। ভবিষতে বৃহৎ আকারে মেয়র নাট্য উৎসব করা হবে। ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন “বহুরূপী নাট্য সংস্থা” নাট্য ও সাংস্কৃতি চর্চা মাধ্যমে দেশ বিদেশে খ্যাতি ছড়িয়ে দিচ্ছে। ময়মনসিংহ পৌরসভা এসব সংগঠনগুলোকে অতীতের ন্যায় ভবিষ্যতেও সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।
গত ৬ জুলাই সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমী হল রুমে ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন “বহুরূপী নাট্য সংস্থা” ৪৩তম প্রতিষ্টা বার্র্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ৬ ও ৭ জুলাই ২ দিনব্যাপী আলোচনা সভা নৃত্যনাট্য ও নাটক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন “বহুরূপী নাট্য সংস্থা” এর সচিব বিশিস্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শাহাদাত হোসেন খান হিলু, ধন্যবাদ জানান , বিশিস্ট নাট্য অভিনেতা চিকিৎসক নেতা ডাঃ তারা গোলান্দাজ, আরো শুভেচ্ছা রাখেন বিশিস্ট রাজনৈতিক ব্যক্তি আজাদ জাহান শামীম, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার এসোসিয়েশনের ময়মনসিংহ বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বিদ্্েরাহী নাট্য গোষ্টির নেতা আজাহার হাবলু, বিশিস্ট চুক্ষ বিশেষজ্ঞ ড্ঃা হরিশংকর দাশ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সারোয়ার জাহান।
উদ্বোধন শেষে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের রচনায় মানস তালুকদারের পরিচালনায় মন মুগ্ধকর ৬৪ তম প্রয়োজনা নৃত্যনাট্য “শাপশোচন” মঞ্চস্থ হয়।
৭ জুলাই শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমী মঞ্চে মান্নান হীরা রচিত শাহাদাত হোসেন খান হিলুর নির্দেশনায় ৫৪ তম প্রয়োজনা “আগুন মুখা” নাটকটি মঞ্চস্থ হয়।