| |

হালুয়াঘাটে বন্দোবস্তকৃত বসত বাড়ী থেকে ভুমিহীন পরিবারকে উচ্ছেদ চেষ্টার অভিযোগ

হালুয়াঘাট প্রতিনিধি : হালুয়াঘাটে বন্দোবস্তকৃত বসত বাড়ী থেকে ভুমিহীন দরিদ্র পরিবারকে উচ্ছেদ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।
জানা যায়, উপজেলার গাজিরভিটা ইউনিয়নের মহাজনীকান্দা গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর ভুমিহীন পুত্র মোস্তফা কামালকে গোপীনগর গ্রামের সমশের আলীর পুত্র হজরত আলীগং মিসকেইসের মাধ্যামে ২০১৩ সনে প্রসাশনের নিকট থেকে বন্দোবস্তকৃত ২৫ শতক জমি থেকে বর্তমান দখলকারীকে উচ্ছেদ করে নিজেদের দখলে নেওয়ার পায়তায় লিপ্ত রয়েছে।
দখলকারী মোস্তফা কামাল অশ্রসিক্ত কন্ঠে সাংবাদিকদের জানায়, ১২৮১ নং দলিল মূলে প্রসাশনের নিকট থেকে ২০১৩ সনে ২৫ শতক জমি বন্দোবস্ত নেন তিনি। পরবর্তীতে বাড়ীঘর নির্মাণ করে স্ত্রী সন্তানসহ পরিজন নিয়ে বসবাস করছেন। বন্দোবস্তকৃত বসত বাড়ীটি ছাড়া তার আর কোন জমি নেই। হজরত আলীগং প্রসাশনকে প্রভাবিত করে বন্দোবস্তকৃত বসত বাড়ীটি ভাংচুর করার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। যে কোন সময় বাড়ী থেকে উচ্ছেদ করে হজরত আলীগং বাড়ীটির দখল নিতে পারে। বর্ষার এ সময় পাখিও বাসা ছাড়েনা কিন্ত স্থানীয় প্রসাশন তাকে উচ্ছেদের জন্য তৎপর রয়েছে। বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা হলে তার গাছতলা ব্যাতীত কোন স্থানে যাওয়ার জায়গা নেই। স্ত্রী ও দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে কোথায় বসবাস করবেন তা তার জানা নেই। যদিও তার বন্দোবস্তকৃত জমিটি হযরত আলীগংদের নামে প্রসাশন বন্দোবস্ত প্রদান করেন নি। এবং কি তাকে উচ্ছেদের জন্য প্রসাশন কোন নোটিশ প্রদান করেন নি । তথাপি তার উপর চলছে অত্যাচার। তিনি স্থানীয় প্রসাশনের নিকট সুবিচার প্রার্থনা করেন।
এ বিষয়ে হজরত আলী বলেন তিনি উক্ত জমিটির বন্দোবস্ত পান নি। মোস্তফা কামালের বন্দোবস্তকৃত জমিটির বিরুদ্ধে তিনি আপিল আবেদন করে ছিলেন। আপিল রায় পক্ষে আসায় তিনি উক্ত জমির দাবীদার সে জন্যই তিনি জমিটি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন বলেন, বন্দোবস্তকৃত বসত বাড়ীটি মোস্তফা কামালকে ভেঙ্গে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ প্রদান করেছেন। মোস্তফার বন্দোবস্তকৃত দলিলটি বাতিল করা হয়েছে বলে জানান।