| |

ক্বওমী মাদরাসার শিক্ষার্থীরাও বিনামুল্যে সরকারী বই পাবে ;মতিয়া চৌধুরী

নকলা(শেরপুর) সংবাদদাতা:
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার, নকলা-নালিতাবাড়ীর এমপি ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, এদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় ক্বওমী মাদরাসা শিক্ষার গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা রয়েছে, কেননা সরকারের কোন প্রকার সহযোগীতা ছাড়াই ব্রিটিশ আমল থেকে পাকিস্তান আমল ও স্বাধীন বাংলাদেশের শিক্ষা উন্নয়নে তারা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু ইতি পূর্বে ক্বওমী শিক্ষা ব্যবস্থা পরিচালনা কারীরা সরকারী শিক্ষার আওতায় আসতে চান নাই বা সরকারের সাথে তাদের কোন যোগাযোগও হয় নাই।

কৃষিমন্ত্রী রোববার বিকেলে নকলা উপজেলার বিবিরচর রহমানীয়া ফাজিল মাদরাসা মাঠে প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইবতেদায়ী মাদরাসা ও ক্বওমী মাদরাসার প্রতি প্রতিষ্ঠানের ২য় শ্রেণির ২০ জন করে শিক্ষার্থীর সোলার বাতি বিতরণ অনুষ্ঠান পূর্ব বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান ধর্মীয় শিক্ষা বান্ধব সরকার ও জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা এবিষয়টির প্রতি গুরুত্ব দিয়ে ক্বওমী শিক্ষাকে সরকারী স্বীকৃতিদানের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করেন, ইতি মধ্যে ক্বওমী শিক্ষার জন্য শিক্ষা বোর্ড গঠন, কারিকুলাম ও সিলেবাস প্রণয়নের কাজ সরকারের সহযোগীতায় ক্বওমী শিক্ষকদের মাধ্যমেই বাস্তবায়ন করা হচ্ছে, সরকার চায় দেশের সাধারণ শিক্ষার সঙ্গে ক্বওমী শিক্ষা ব্যবস্থাও সরকারের সকল প্রকার সুযোগ সুবিধার অন্তর্ভুক্ত হউক। এজন্যে ভবিষ্যতে সরকার ক্বওমী মাদরসার শিক্ষার্থীদের মাঝেও বিনামুল্যে পাঠ্যবই প্রধান করবে। এদিনে তিনি নকলা পৌরসভাসহ ৪টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৪শ ৫০টি সোলার বিতরণ করেন।

মন্ত্রী এর আগে শেরপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাইসকা বাইপাস মোড়ে নির্মাণাধীন শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের মাটি ভরাটের কাজ পরিদর্শন করেন।

এসময়, শেরপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক জন কেনেডি জাম্বিল, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মাহবুবুল আলম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীব কুমার সরকার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, নকলা পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান লিটন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আলতাব আলী।