| |

জামালপুরে যানজট নরিসনে শক্ষর্িাথীদরে অনন্য দৃষ্টান্ত

জামালপুর ব্যস্ততম শহররে প্রধান সড়ক রলেগটে এলাকায় সরকারি আশকে মাহমুদ কলজেরে কয়কেজন ছাত্র জনর্দুভােগ লাঘবে যানজট নরিসন করে এক অনন্য দৃষ্টান্ত দখেয়িছেে । গত ২আগষ্ট বৃহস্পতবিার দুপুরে নরিাপদ সড়করে দাবতিে মানববন্ধন ও বক্ষিোভ মছিলি শষেে ক’জন শক্ষর্িাথী ট্রাফকি পুলশিরে পাশাপশি স্বচ্ছোয় এ কাজে অংশ নয়ে।
এ প্রধান সড়কে তীব্র যানজট লগেইে থাকে প্রায় সব সময়। এ নয়িে শহরবাসীর ভোগান্তরি অন্ত নইে। চলাচলকারি যাত্রীদরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকা পড়েে ঠাঁই দাঁড়য়িে থাকতে হয়। যখন ট্রনে চলাচল করে তখন আরো তীব্র যানজটরে সৃষ্টি হয়। কন্তিু গত বৃহস্পতবিার রলেগটে এলাকায় গয়িে দখো যায় তার ভন্নি চত্রি। শক্ষর্িাথীদরে পীঠে ব্যাগ, সাদা-কালো ইউনফিরম পরা কয়কেজন যুবক যানবাহন চালকদরে একসারতিে নওেয়ার চষ্টো করছ।ে আগে সখোনে দুই-তনি সারতিে গাড়ি চলাচল করতো। ফলে তীব্র যানজটে চরম ভোগান্তি হতো। ট্রাফকি পুলশি থাকলওে যুবকদরে তাৎক্ষণকি এই উদ্যোগে সকল গাড়ি রাস্তার দুই পাশে এক সারতিে চলাচল করতে শক্ষর্িাথীরা বাধ্য কর।ে অল্প সময়রে মধ্যে শহরে যানজট মুক্ত হয়ে যায়। ফলে যাত্রীরা তাদরে গন্তব্যে দ্রুত যতেে সক্ষম হন। পরে জানা যায়, ওই যুবকরা সবাই সরকারি আশকে মাহমুদ কলজেরে শক্ষর্িাথী।
যানজট নরিসনে ছাত্রদরে এই উদ্যোগকে স্থানীয়রাসহ চলাচলকারি যাত্রীরা স্বাগত জানয়িছেনে।
এ ব্যাপারে সরকারি আশকে মাহমুদ কলজেরে উচ্চ মাধ্যমকি প্রথম র্বষরে ছাত্র আনোয়ার হোসনে ও মাহমুদুল হাসান জানায় এখানে সব সময় যানজট লগেইে থাক।ে তাই আমরা চষ্টো করলাম যাতে গাড়গিুলো এক সারতিে চল।ে এক সারতিে চালয়িে যানজট মুক্ত করে আমরা ট্রাফকি পুলশিদরে দখোলাম তারা যনে প্রতদিনি এই কাজটইি করনে। এছাড়া তাদরে চালকদরে বোঝাতে হব,ে চালকরা যাতে এলোমলেোভাবে গাড়ি না চালায়। কোনো গাড়ি যাতে অন্যটাকে ওভারটকে না কর।ে সব সময় এভাবে গাড়ি চলাচল করলে শহরে আর কোন যানজট থাকবে না বলে উল্লখে করনে।’