| |

ধোবাউড়ায় ৪ বছরের শিশু সুমাইয়া হত্যার মুল আসামীকে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ, আসামীদের ভয়ে বাড়িছাড়া বাদী

আবুল হাশেম ঃ
ধোবাউড়ায় ৪ বছরের শিশু সুমাইয়াকে অপহরণ করে হত্যা ও গুম করা মামলার মুল আসামীকে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ পরিবারের। মামলাটি পুলিশ থেকে ডিবিতে যাওয়ার পর মুল আসামীকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে সুমাইয়ার বাবা জুয়েল মিয়া অভিযোগ করেন। এমনকি আসামীদের ভয়ে বাদী বাড়িতে থাকতে পারছেন না।গত ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর উপজেলার উত্তর গামারীতলা ইউনিয়নের জুয়েল মিয়ার শিশু কন্যা সুমাইয়াকে অপহরণ করে ২ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করার অভিযোগে ধোবাউড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। এসময় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুন্তাজ আলী নামে একজনকে আটক করে পুলিশ। ৮ দিন পর ঐ শিশুর বাড়ির পাশেই একটি ক্ষেত থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় উত্তর গামারীতলা ইউনিয়নের আলমগীর(২০),রিপন মিয়া(২৪), আবুল কাশেম(৪৫) এবং মজিবর রহমান মজু(৬০) কে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সংশোধনী ২০০৩ এ ধারা ৭/৮/৩০ মামলা রুজু করা হয়। পরে ১ নং আসামী আলমগীর ও ৪ নং আসামী মজিবর রহমান মজুকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু মামলাটি ডিবিতে স্থানান্তরিত হলে চার্জশিটে রিপন মিয়াকে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ করেছে শিশুটির পরিবার। সুমাইয়ার পিতা জুয়েল মিয়া জানান রিপনই সুমাইয়াকে হত্যা করার সমস্ত পরিকল্পনা করেছে। এদিকে মামলা করার কিছুদিন পরই বাদীর বাড়িতে হামলা করেছে আসামী পক্ষের লোকজন। এরপর থেকে এখনও পলাতক অবস্থায় রয়েছে মামলার বাদী জুয়েল মিয়া। এ ব্যাপারে ধোবাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ শওকত আলম পিপিএম বলেন মামলাটি এখন ডিবির তদন্তাধীন রয়েছে। ময়মনসিংহ ডিবির অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান জানান বাদী যদি নারাজী দেয় তাহলে পুনরায় তদন্ত করা হবে এবং আমার পক্ষ থেকে স্পেশালি খোঁজ নিয়ে দেখব।