| |

পরিবহন ধর্মঘটের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন

বাবলী আকন্দ ঃ পার্লামেন্টে সড়ক পরিবহন আইন বাতিল,সংশোধনসহ আট দফা দাবীতে বাংলাদেশ পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা হরতাল ও ধর্মঘটের নামে যে নৈরাজ্য শুরু করেছে তা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। তারা পরিবহন ধর্মঘটের নামে এ্যাম্বুলেন্সে মূমুর্ষু রোগীদের আটকে রাখা, স্কুল কলেজ ছাত্রীদের পোশাকে মবিল দেয়া,সাধারন নাগরিকদের অপদস্ত করা,নিজেদের চালক সহকর্মীবৃন্দ গাড়ি নিয়ে বের হলে তাদের মুখে ও গাড়িতে পোড়া মবিল লেপ্টে দেয়া এবং এ্যম্বুলেন্স আটকে রেখে নবজাতক শিশুটির মৃত্যুর ঘটনার মধ্য দিয়ে দেশে এক ভীতিকর পরিবেশ ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। কিছুদিন আগে নিরাপদ সড়ক নিয়ে কিশোর আন্দোলনের দাবীতে সড়ক নিরাপত্তা আইন পাশ হয়। সংসদের সেই আইনকে অবমাননা করে তারা রাস্তায় নেমে সাধারন মানুষসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষদের অপমান করছে,বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলছে। একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে এটি কোনভাবেই কাম্য নয়। গতকাল পরিবহন ধর্মঘটের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টির কারনে এ্যাম্বুলেন্সে নবজাতক মৃত্যুর জন্য দায়ী এবং নাগরিকদের অপদস্তকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে জনউদ্যোগ ময়মনসিংহ ও জেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি শহরের শহীদ ফিরোজ জাহাঙ্গীর চত্বরে এক মানব বন্ধনের আয়োজন করে। মানব বন্ধনে বক্তাগণ বলেন,একদিকে শিক্ষার্থীদের দেশকে সুশৃঙ্খল করে গড়ে তোলার আন্দোলন আর অন্যদিকে সেই সুশৃঙ্খল পরিবেশকে বিশৃঙ্খল করে গড়ে তুলতে চাইছে আমাদের স্বজন। এরূপ পরিস্থিতি সত্যিই কষ্টদায়ক। যারা এরূপ পরিস্থিতি সৃষ্টি করছে অবিলম্বে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানান বক্তাগণ। এসময় বক্তব্য রাখেন জনউদ্যোগ ময়মনসিংহ এর উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য এড.এমদাদুল হক মিল্লাত,যুগ্ম আহবায়ক এড.শিব্বির আহম্মেদ লিটন,এড.আবুল কাশেম,এড আব্দুল মোতালেব লাল, ইয়াজদানী কোরায়সী, নিরাপদ সড়ক চাই জেলা শাখা সভাপতি আব্দুল কাদের চৌধুরী মুন্না, জেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক সৈয়দা সেলিমা আজাদ,শিক্ষকনেতা সুলতান আহম্মেদ,বিডিক্লিন এর সমন্বয়ক মতিউর রহমান ফয়সাল,নারীনেত্রী নূরজাহান পারভীন মাসরুফা মিমি,রানু প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সভাপতিত্ব করেন জনউদ্যোগ ময়মনসিংহ এর সভাপতি এড.নজরুল ইসলাম চুন্নু।