| |

নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে নারী প্রগতি সংঘের সেমিনারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিজুর রহমান

বিশেষ প্রতিনিধি : বর্তমান সরকার নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করে যাচ্ছে। আশা করা যায় সরকারি ও বেসরকারি প্রচেষ্টাসমূহ অব্যাহত থাকলে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ। বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ ময়মনসিংহের উদ্যোগে আয়োজিত সেমিনারে এসব কথা বলেন ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ হাবিজুর রহমান। তিনি আরও বলেন, সমাজে নারীর প্রতি সকলপ্রকার সহিংসতা রোধে নারী-পুরুষ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। যেসকল কিশোরীরা প্রশিক্ষিত হয়েছে তাদেরকে মাস্টার ট্রেইনার হিসেবে একটি বিগ্রেড করে সদর উপজেলার অন্যান্য স্কুলসমূহে একার্যক্রম পরিচালনা করতে উপজেলা প্রশাসন সহযোগিতা করবে। গতকাল ২৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রি. নগরীর প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের হল রুমে আয়োজিত প্রকল্পের সমাপনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মাহফুজ ইবনে আইয়ুব, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবু আহসান মোঃ রেজাউল হক, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ময়মনসিংহ জেলা প্রোগ্রাম অফিসার শারমীন শাহাজাদী, ত্রিশাল উপজেলার একাডেমিক সুপারভাইজার শাহানা আক্তার, বিএনপিএস ময়মনসিংহ এর ম্যানেজার সঞ্জীব কুমার নাহা, বিএনপিএস ময়মনসিংহের প্রোগ্রাম অর্গানাইজার মশিউর রহমান, বিএনপিএস ময়মনসিংহের হিসাবরক্ষক মাহফুজা বেগমসহ প্রকল্প এলাকার উপকারভোগীবৃন্দ। বিএনপিএস কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সমন্বয়কারী কাজী রবিউল আলম এর সভাপতিত্বে সেমিনারের সঞ্চালনা করেন প্রেগ্রাম অর্গানাইজার মশিউর রহমান। পাওয়অর অব সেল্ফ ডিফেন্স এন্ড মটিভেশন টু প্রিভেন্ট ভায়োলেন্স এগেইনস্ট ওমেন/গার্লস শীর্ষক প্রকল্পের সমাপনী পর্বে প্রকল্পের লক্ষ্য ও অর্জন সম্পর্কে আলোচনা করেন উপকারভোগী ও অতিথিবৃন্দ। জানা যায়, সংস্থাটি ময়মনসিংহ সদর ও ত্রিশাল উপজেলার দশটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কিশোরিদের আত্মরক্ষার কৌশল (মার্শাল আর্ট, মানোসামাজিক কাউন্সিলিং) বিষয়ে প্রশিক্ষণসহ সচেতনতামূলক সভা পরিচালনা করা হয়। উপকারভোগিদের মধ্য থেকে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ জানায়, নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সংস্থাটি এ প্রকল্পের মাধ্যমে কিশোর-কিশোরী ও এলাকার মানুষের মধ্যে দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন, আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছে।