| |

ময়মনসিংহ সদর উপজেলার অসচ্ছল ৮ মুক্তিযোদ্ধার আবাসগৃহ নির্মান করছে সরকার ঃ ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৭২ লাখ টাকা

স্টাফ রিপোর্টার ঃ বর্তমান সরকার স্বাধীন সার্বভৌম বাঙ্গালী জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যানে সবকিছুই করে যাচ্ছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য চাকুরী ক্ষেত্রে নির্দ্ধারিত কোটা, চিকিৎসা সেবা, সম্মানী ভাতা বৃদ্ধি ছাড়াও সারাদেশে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের বসবাসের জন্য গৃহ নির্মান করে দিচ্ছেন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের উদ্যোগে সরকারী অনুদানে মুক্তিযোদ্ধদের আবাস গৃহ নির্মান প্রকল্পে’র আওতায় ময়মনসিংহ সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৮ জন মুক্তিযোদ্ধার গৃহনির্মান কাজ চলছে। উপজেলা প্রকৌশলীর তত্ত্বাবধানে এসবের নির্মান কাজ খুব শীঘ্রই শেষ হবে বলে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী ও সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জানান। পানীয়জলের ব্যবস্থা, গোছলখানা, পায়খানা সহ হাফবিল্ডিং প্রতিটি টিন সেড আবাসগৃহ ৯ লাখ টাকা করে ৮ টি আবাসগৃহ নির্মানে ব্যয় হচ্ছে মোট ৭২ লাখ টাকা। সদরের যে আট ভাগ্যবান মুক্তিযোদ্ধা সরকারী অনুদানে আবাস গৃহ পাচ্ছেন তারা হলেন-অষ্টধার ইউনিয়নের কাওনিয়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুল হক, কুষ্টিয়া ইউনিয়নের মাটিয়ামতলা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদিন, অলিপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নূরু মিয়া, কোকিল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মনসুর আলি, পৌরসভাধীন সানকিপাড়া শেষ মোড়ের খনকার বাড়ির মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হোসেন, সেনবাড়িরোড নাছিরাবাদ কলেজের কাছের মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা ও চর ঈশ্বরদিয়া ইউনিয়নের চর গোবদিয়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম সরকার রবার্ট ও ঘাগড়া ইউনিয়নের এক বীর মুক্তিযোদ্ধা। শুধু ঘাগড়ার মুক্তিযোদ্ধার আবাসগৃহ নির্মান কাজ তথ্যজটিলতার কারনে স্থগিত রাখা হয়েছে। আর বাকী ৭ জনের আবাসগৃহ নির্মান কাজ সমাপ্তির পথে। চুড়ান্ত তদন্তের পর ঘগড়ার বিষয়টি সুরাহা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে।