| |

নান্দাইলে প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

নান্দাইল প্রতিনিধি ঃ নান্দাইল উপজেলার পৌরসদরে চারআনি পাড়া গ্রামে গতকাল সোমবার ২১ ডিসেম্বর অনুমান বেলা ২ ঘটিকার সময় মৃত পিয়ার বক্সের পুত্র সুরুজ আলীর বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে প্রতিবেশি প্রতিপক্ষ মাসুদ (৩৫), রুকন (২৭), কাকন (৩০) সর্বপিতা আব্দুল হামিদ সাবিনা খাতুন (২২), লিপি আক্তার (২৫) আরো অজ্ঞাত ৪/৫জন ব্যক্তি দেশীয় অস্ত্রে সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে টিনশেডের ঘর শাবল ও কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে ভেঙ্গে তছনছ করে দেয়। এব্যাপারে নান্দাইল মডেল থানায় ক্ষতিগ্রস্থ সুরুজ আলী একটি এজহার দায়ের করেছে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে। এজহার সূত্রে জানা যায়, বাড়িতে মারত্মক অস্ত্রে শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলাকারীরা টিনশেড ঘরে সকল বেড়া কুপিয়ে তছনছ করে ঘরের ভিতর থাকা ফ্রিজ টিভি সহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাংচুর করে দেয়। এছাড়া ঘরের ভিতরে সুকেসের ভিতরে থাকা নগদ ৬ লক্ষ টাকা ও ১ লক্ষ টাকার স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়। হামলাকারীরা এ সময় বাড়িতে বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। বাড়ির বাথরুম ভেঙ্গে ফেলে এবং পানির মর্টার সাবল দিয়ে উপরিয়ে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় কথিত সন্ত্রাসীরা গৃহ মালিকের স্কুল পড়–য়া পুত্র আজিজুল হককে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। বর্তমানে আহত আজিজুল নান্দাইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছোট বাচ্চাদের ঝগড়াকে কেন্দ্র করে স্থানীয় একটি সালিশ দরাবার বসে এবং সালিশ দরবারে বিরোধ মিমাংসা না হওয়ায় পরবর্তী সময় প্রতিবেশী প্রতিপক্ষ লোকেরা এ ঘটনা ঘটায়। ক্ষতিগ্রস্থ গৃহ মালিক সুরুজ আলী জানান, আমি একজন গরিব মানুষ সারাজীবন পরিশ্রম করে যা করেছিলাম সন্ত্রাসীরা আমার সব শেষ করে দিয়েছে। আমার ২০ লক্ষ টাকা ক্ষতিসাধন হয়েছে। বর্তমানে হামলা কারীরা আমাকে বাড়িতে যেতে দিচ্ছেনা। এব্যাপারে বিষয়টি নিয়ে নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান এর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, এজহার পেয়েছি আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।