| |

দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া- কাদা পানির উপর দুর্গাপুর পৌরবাসী জিম্মি।

মোঃ মোহন মিয়া , দুর্গাপুর ( নেত্রকোনা )

নেত্রকোনার দূর্গাপুরে বৃষ্টি নেই বাদল নেই। দৈনিক অনবরত শত,শত ভারী ট্রাক বেপরোয়া চলাচলে পৌর শহরের প্রায় সব রাস্তা গুলোর অবস্থা করুন। পৌরশহরবাসীর জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। বর্তমানে পৌরবাসী কাদা পানির উপর জিম্মি। তেরী বাজার ব্যাস্ততম সড়ক, কালিবাড়ী মোড় হতে নাজিরপুর মোড় পর্যন্ত, উপজেলা প্রশাসনিক ভবন সম্মুখ হইতে, হাসপাতাল রোড পর্যন্ত কাদা-মাটিতে ভরপুর। কলেজ রোড এলাকার আদর্শবিদ্যাপিঠ দি চাইল্ড লার্নিং হোমস্, সুসঙ্গ আদর্শ বিদ্যানিকেতন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সুসঙ্গ সরকারী মহাবিদ্যালয়, দুর্গাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, দুর্গাপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজ এর শিক্ষার্থীরা দিনের বেলায় বেপরোয়া ট্রাক, ট্রাক্টর ও লড়ি চলাচল এবং নদী থেকে ভিজাবালু পরিবহন বন্ধে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকবার রাস্তায় মানব বন্ধন করেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারকলিপি ও প্রদান করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, পৌরশহরের উকিলপাড়া, কলেজ রোড, উপজেলা চত্বর, হাসপাতাল এলাকার রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন প্রায় ৪ থেকে ৫ শত ট্রাক্টর চলাচলে রাস্তার অবস্থা করুণ দশায় পরিণত হয়েছে। রাস্তা পার হওয়া তো দূরের কথা ঐ রাস্তা দিয়ে পথচারীদের চলাচল করাই কঠিন হয়ে পড়েছে। ঘন্টার পর ঘন্টা জ্যাম লেগে থাকে ঐ রাস্তায়। এতে করে নানা ধরণের প্রতিবন্ধকতা তৈরী হচ্ছে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের। রাস্তায় প্রতিনিয়ত বিঘœ ঘটায় শিশুরা স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে। হাসপাতাল এলাকায় ঐতিহ্যবাহী দি চাইল্ড প্রিপারেটরী স্কুলের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিও কমে গেছে। খোঁজনিয়ে জানাগেছে, স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট চক্র প্রভাবশালী মহলের যোগসাজসে অবৈধ লাইসেন্স বিহীন লড়িগাড়ী অপ্রাপ্তবয়স্ক চালক দিয়ে বালু পরিবহন করাচ্ছে প্রতিনিয়ত। ২০১৯ সনে শুধুমাত্র লড়িগাড়ী চাপা দিয়ে বিভিন্ন এলাকার শিক্ষার্থী সহ হত্যা করা হয়েছে প্রায় ২০ জন, এমন অবস্থাকেই পৌরসভাকে দায়ীকরছে পৌরবাসী। এ ব্যাপারে দুর্গাপুর নির্বাহি অফিসার ফারজানা খানমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সংবাদ কে বলেন বহুবার মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেও দিবারাত্র ট্রাক চলাচল করা বন্ধ করা যাচ্ছে না। বিষয় টি উধ্বর্তন কতৃপক্ষকে অবহিত করা হয় হয়েছে।