| |

মুক্তাগাছায় নৌকার পরাজয়ে আ’লীগ নেতা-কর্মীদের পদত্যাগের সিদ্ধান্ত

স্টাফ রিপোর্টার : পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী আঃ হাই আকন্দের সুচনিয় পরাজয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদককে দায়ি করে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা। গতকাল শনিবার দুপুরে স্থানীয় আটানিবাজার এলাকায় আওয়ামীলীগের জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।
নির্বাচনে সুচনীয় পরাজয় নিয়ে আটানিবাজারের প্রধান নির্বাচনী অফিসে জরুরি বৈঠক ডাকেন আওয়ামীলীগের মনোনিত মেয়র প্রার্থী আঃ হাই আকন্দ। এতে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি, উপজেলা আওয়ামীলীগের অধিকাংশ নেতা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং সম্পাদকরা অংশ নেন। তারা নির্বাচনে সুচনীয় পরাজয়ের জন্য উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য কেএম খালিদ বাবু ও সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন সরকারকে দায়ি করেন। বেঠকে তারা অভিযোগ করেন সভাপতি ও সম্পাদক গোপনে বিএনপির প্রার্থী শহিদুল ইসলামের সাথে বৈঠক করেছেন ও বিদ্রোহী প্রার্থীকে উৎসাহিত করেছেন। এতে ধানের শীষ প্রতীক বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ি হয়। সভাপতি ও সম্পাদকের এ ধরণের কর্মকান্ডে ক্ষিপ্ত হয়ে গতকালের বৈঠকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, প্রচার সম্পাদ মোঃ তারেক, যুব বিষয়ক সম্পাদক হুমাযুন কবীর হুমিসহ অধিকাংশ নেতা আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে দল থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি খন্দকার আঃ মালেক শহীদুল্লাহ, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বদর উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আজিজুল হক ইদু,সহ-সভাপতি সত্য স্বপন চক্রবর্তী, সাবেক সভাপতি আঃ সামাদ মাস্টার, আবু তাহের সরকার,মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আবুল কাশেম, সাবেক কমান্ডার ইদ্রিস আলী আকন্দ,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান কবীর, মনিরুজ্জামান, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি আক্কাছ আলী, সাধারণ সম্পাদক এবিএম জহিরুল হক জহির, হুমায়ুন কবীর মোল্লা, মোঃ তারেক, হুমায়ুন কবীর হুমি, শহীদুল্লাহ প্রমূখ।