| |

ঝিনাইগাতীর উচ্চ বিদ্যালয় গুলোতে ভর্তি বাণিজ্যের অভিযোগ

ঝিনাইগাতী রতিনিধি : শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার উচ্চ বিদ্যালয় গুলোতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগ শিক্সার্থী ও অভিভাবকদের। অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলার সর্বত্র বিদ্যালয় গুলোতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হারে চালিয়ে আসছে ভর্তি বাণিজ্য। বছরের শুরুতেই বিদ্যালয় গুলোতে প্রতিজন ছাত্র-ছাত্রীর কাছ থেকে ৫শ’থেকে ৮শ’ টাকা পর্যন্ত আদায় করা হচ্ছে। এ উপজেলায় ২২টি উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে। ২/১ বিদ্যালয় ব্যতীত প্রায় সবগুলো বিদ্যালয়েই চলছে এখন ভর্তি বাণিজ্য। এ টাকা দিয়ে ভর্তি হতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের। নানা অজুহাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগন এ অর্থ আদায় করে আসছে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। শিক্ষকদের দাবী অনুযায়ী অতিরিক্ত ভর্তি ফি দিতে না পারায় অনেক শিক্ষার্থীদের ভাগ্যে জুটছে না বই। এ ধরনের অভিযোগ আসছে অহরহ। কিন্তু এর কোন প্রতিকার হচ্ছে না। নিরুপায় হয়েই অতিরিক্ত হারে টাকা দিয়ে ভর্তি হতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি ধানশাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহাজ উদ্দিন সাজু’র সাথে কথা হলে তিনি বলেন, সেশন চার্জসহ ফি নেয়ার বিষয়টি পরিপত্রে রয়েছে। এটা অবৈধ নয়। ঝিনাইগাতী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল হামিদ বলেন, নিয়মের বাইরে টাকা নেয়া হচ্ছে না। উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ নাসির উদ্দিন বলেন, সরকারীভাবে ভর্তি বিষয়ে কোন ফি নেয়ার বিধান নেই। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে জানান।