| |

১১বছর শশিুর সাথে ৮৫বছররে বৃদ্ধার বয়িে

জামালপুর জলোর দওেয়ানগঞ্জ উপজলোর আমখাওয়া ইউনয়িনরে বয়ড়াপাড়া গ্রামে স্থানীয় মাতবররা সাত সন্তানরে জনক ৮৫বছররে বৃদ্ধার সাথে ১১বছররে শশিুর বয়িে দয়ো হয়ছে। নাতরি র্ধষণে শশিু অন্তঃসত্ত্বা ও র্গভপাত ঘটানোর ফল ভোগ করছনে ওই বৃদ্ধ।
স্থানীয় লোকজন জানান, স্থানীয় মহলিা মাদরাসার পঞ্চম শ্রণেরি শক্ষর্িাথীর (১১) সাথে সুরমান আলীর বখাটে ছলেে শাহনিরে (১৮) শারীরকি সর্ম্পক হয়। এতে ওই শক্ষর্িাথী অন্তঃসত্ত্বা হয়। ১০-১২দনি আগে কবরিাজি চকিৎিসায় র্গভপাত ঘটানো হয়। বষিয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় চলতি সপ্তাহে এ নয়িে ইউপি সদস্য ও স্থানীয় মাতবররা সালশি বঠৈক করনে। সালশিে নাতরি কুর্কমরে দায় চাপয়িে দয়ো হয় ৮৫ বছররে বৃদ্ধ দাদার ওপর। শষেে বৃদ্ধরে সাথইে ওই শশিুছাত্রীর বয়িে দয়ো হয়। ৮৫ বছররে বৃদ্ধ মহরি উদ্দনি ঠকিমতো কথা বলতে পারনে না, চোখওে ঝাপসা দখেনে। তনিি সাত সন্তানরে পতিা। দুই স্ত্রী মারা গছেনে।
তৃতীয় বয়িরে বষিয়ে মহরি উদ্দনিরে জানান,আমার উপর দোষ দয়িে বয়িে করাইছে গফুর মাস্টার, কদ্দুছ মাস্টার, নাদু মম্বোরসহ কয়কেজন। আসলে আমি নর্দিােষ।
বৃদ্ধরে ময়েে আবদো খাতুন জানান, ময়েটেরি র্গভপাত বড়ি খাইয়ে নষ্ট করা হয়ছে।ে
নাম প্রকাশে অনচ্ছিুক এলাকার মাদরাসা শক্ষিক বলনে, ছলেরে ঘররে নাতি দোষ করছে,ে এর দায়ভার জীবনমৃত্যুর সন্ধক্ষিণে থাকা ওই বৃদ্ধরে ওপর চাপয়িে শশিুটকিে বয়িে দয়ো হয়।
চর আমখাওয়া ইউনয়িন পরষিদরে সদস্য জয়নাল আবদেীন নাদু জানান, মুরব্বদিরে নয়িে সালশি করা হয়ছে।ে সালশিে অনতৈকি কাজ করায় বৃদ্ধকে ১০দোররা এবং শাহনিকে ১০টি দোররা মরেে শরীয়ত মতে বয়িে দয়ো হয়ছে।ে তবে তার ছলেে ঘররে নাতি এ ঘটনার সাথে জড়তি না। এ ঘটনার জন্য বৃদ্ধই দায়ী।
চর আমখাওয়া ইউনয়িনরে চয়োরম্যান আজজিুর রহমান আকন্দ জানান, এটা আর্শ্চয ও ন্যক্কারজনক ঘটনা। যারা এ ঘটনা ঘটয়িছেে তাদরে বরিুদ্ধে ব্যবস্থা নয়ো হব।ে
দওেয়ানগঞ্জ মডলে থানার ওসি এমএম মইনুল ইসলাম বলনে, এ ধরনরে ঘটনা আমার জানা নইে।