| |

ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল সড়কে কালভার্ট ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

মুক্তাগাছা প্রতিনিধি:
ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল সড়কের মুক্তাগাছায় একটি পুরুনো কালভার্ট ভেঙে সড়কে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সোমবার সকাল ৬ টা থেকে উত্তরবঙ্গের সাথে ময়মনসিংহের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এতে দুর্ভোগে পড়েন দুর দূরান্তের যাত্রীরা। সড়ক ও জনপথ বিভাগ জানিয়েছে- সড়ক যোগাযোগ স্বাভাভিক হতে অন্তত চারদিন সময় লাগবে।
মুক্তাগাছা উপজেলার মানকোন ইউনিয়নের নিমুরিয়া (ডোবারপাড়) এলাকায় কইল্লা খালের উপর প্রায় দেড়শ’ বছর পূর্বে কালভার্ট নির্মিত হয়। ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল আঞ্চলিক মহাসড়কের নিমুড়িয়া (ডোবারপাড়) এলাকার প্রায় ৪০ মিটার দীর্ঘ জীর্ণ কালভার্টটি সোমবার ভোর ৬ টার দিকে ধসে পড়ে। ময়মনসিংহ গামী একটি পণ্য বোঝাই ট্রাক পারাপারের সময় কালভার্টটি ধসে পড়লে সড়কটিতে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এই সড়ক দিয়ে টাঙ্গাইল, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, কুড়িগ্রাম, পাবনাসহ উত্তরাঞ্চলে চলাচলকারী যানবাহনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন সড়কটিতে চলাচলকারী সাধারণ মানুষ। সোমবার বিকেল পর্যন্ত সড়কটিতে অনেক যাববাহনকে আটকে থাকতে দেখা গেছে কালভার্টের ভাঙা অংশে। অনেক পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকা পড়ে এলাকাটিতে। তবে কালিবাড়ি বাজার থেকে চেচুয়া বাজার হয়ে প্রায় ১৫ কিলোমিটার ঘুরে ভিন্ন রাস্তা ব্যবহার করে যানবাহন চলাচল করছে।
সড়কটি দেখবালের দায়িত্বে রয়েছে ময়মনসিংহ সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ)। খবর পেয়ে সোমবার দুপুরে সড়ক বিভাগের পক্ষ থেকে কালভার্টের দুই পাশে বাঁশ বেধে যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। স্থানীয় নিমুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা আবদুল জলিল বলেন, ব্রিটিশ আমলের কালভার্টের ছিলো এটি। দুর্বল হয়ে পড়া কালভার্ট দিয়ে প্রতিনিয়ত ভাড়ি যানবাহন চলে। কালভার্টিটি ভেঙে পড়ায় মানুষের দুর্ভোগ শুরু হয়েছে।’ সড়কে চলাচলকারী স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মী তারিকুল ইসলাম বলেন, কালভার্টের ভেঙে সড়কটি দিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এ অবস্থায় অন্তত ১৫ কিলোমিটার ঘুরে অন্য সড়ক দিয়ে মুক্তাগাছা শহরে যেতে হবে।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান সমকালকে বলেন, অন্তত দেড়শ বছরের পুরুনো কালভার্ট ছিলো। ভাড়ি যান পারাপারের সময় ধসে পড়ে এটি। ভাঙা স্থানে একটি বেইলি ব্রিজ স্থাপন করে সাময়িক ভাবে সড়ক চলাচল স্বাভাভিক করা হবে। আগামী বৃহস্পতিবার নাগাদ সড়কটিতে বেইলি সেতু স্থাপন শেষে যানচলাচল স্বাভাভিক হতে পারে।##