| |

ভালুকায় অর্থের অভাবে চিকিৎস্যা করতে পারছে না মাদ্রাসা ছাত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা, ভালুকা ময়মনসিংহ ১৮ জানুয়ারী ঃ
ভালুকা উপজেলার কাচিনা গ্রামের শমসের আলীর পুত্র মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্র ফাহাদ (১৫) কে ৮ মাস পূর্বে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় পিতা বাদী হয়ে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করে । মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীকে এলাকার এক প্রভাবশালী বিএনপি নেতা আব্দুল মজিদ হুমকি দিচ্ছে বলে জানা গেছে। দীর্ঘদিন যাবৎ ওই মেধাবী ছাত্র ফাহাদ চিকিৎসার অভাবে বর্তমানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে ।মামলা সূত্রে জানা যায়,ওই গ্রামের শমসের আলীর পুত্র বাটাজোর দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্র ফাহাদকে গত ৬মার্চ/২০১৫ইং তারিখে রাত ৮ টার দিকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে একই এলাকার মাদক ব্যবসায়ী রাসেল, জালাল, কালা আজিজ, ছানোয়ার , হৃদয়, ছাইজুল, ও কামাল সহ অজ্ঞাত আরও ৫/৬ জন লোক জামাল মিয়ার বাড়ীর পেছনে নিয়ে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মানাত্মক আহত করে। পরে ফাহাদকে গুম করার উদ্দেশ্যে সিএনজি যোগে অজানার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া পথে কাচিনা বাজারের লোকজন টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। দীর্ঘ ৮ মাস ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার নেয়ার পর ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়ার পরামর্শ দিলে তার পরিবার তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে । নল দিয়ে তরল জাতীয় খাবার খেয়ে বেচে আছে ফাহাদ । । গত দেড় মাস যাবৎ বাড়ীতে চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে মাদ্রাসা ছাত্র ফাহাদ। অর্থের অভাবে বিনা চিকিৎসায় অকালে ঝড়ে যাচ্ছে মেধাবী ছাত্র ফাহাদ এর জীবন। এ ঘটনায় ফাহাদের পিতা ৭ জনের নাম উল্লেখ করে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করে । মামলার পর থেকেই মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকী দিয়ে যাচ্ছে বলে ফাহাদের পিতা শমশের আলী জানান । মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই রুহুল আমিন জানান, মামলাটি তদন্ত চলছে। দুই আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।