| |

ময়মনসিংহ হাসপাতালে লিফ্টের তার ছিঁড়ে নীচে পড়লে আটকে পড়া ৪ জনকে ২ ঘন্টা পর উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ঃ গতকাল মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারী) বিকেল ৪টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের পুরান ভবনের উত্তর পাশের লিফ্ট এর তার ছিড়ে রোগীসহ আটকে পড়া একই পরিবারের ৪ জনকে দীর্ঘ সোয়া ২ ঘন্টা অভিযান চালিয়ে উদ্ধারে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিস এর ২টি ইউনিট। পুলিশ, ফায়ারসার্ভিস ও হাসপাতাল সূত্রে জানাযায়, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের জরুরী বিভাগের পেছনের বিল্ডিং এর লিফ্টটি দিয়ে রোগী নিয়ে উঠার সময় হঠাৎ ছিড়ে যায়। এতে অপারেশনের এক রোগীসহ ৪ জন ভিতরে আটকা পড়েন এবং এক জন রোগীর স্ত্রী ছিটকে পড়ে যান। খবর শুনে হাসপাতালের লোকজন, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান। লিফ্টের ভিতরে আটকা পড়াদের দ্রুত উদ্ধারে লেগে যান ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট।
ফায়ার সার্ভিস এর সহকারী পরিচালক শহিদুর রহমান জানান, খবর পেয়েই ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট নিয়ে আমি হাসাপাতালে ছুটে যাই। সন্ধ্যা পোনে ৬টার দিকে সুমি ও শাহিন আলমকে, ৬টার দিকে শিহাবকে, সর্বশেষে রোগী জমিস উদ্দিনকে ৬টা ১২ মিনিটে উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘ সোয়া ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আটকা পড়াদের উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃতদেরকে ময়মনসিংহ হাসপাতলে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা সুস্থ্য রয়েছেন।
জানা গেছে, ত্রিশাল উপজেলার ধানিখোলার রোগী জসিমকে নিয়ে জসিমের স্ত্রী আনোয়ারা পারভীন, সুমি, শিহাব ও শাহিনসহ লিফ্টে উঠার সময় লিফ্ট এর তার ছিড়ে যায়। এতে জসিমের স্ত্রী আনোয়ারা পারভীন ছিটকে পড়ে যান এবং ভিতরে রোগী জসিম, সুমি, শিহাব ও শাহিনসহ ৪ জন আটকা পড়েন। এ সময় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল নাছির উদ্দিন আহাম্মদসহ উর্ধতন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে এসে উদ্ধার কাজে সহযোগীতা করেন।
উক্ত ঘটনায় ময়মনসিংহ চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালের উপ-পরিচালক মোঃ আবুল আহসান কে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ১০ কার্য দিবসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদান করতে হবে।