| |

সন্তানের স্বীকৃতি চেয়ে মামলা করায় অন্ত:সত্ত্বা নাসরিন এখন বিপাকে

ঈশ্বরগঞ্জ প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে এক কিশোরীর সাথে মামুন নামে এক যুবক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। আর এতে ওই কিশোরী অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়লে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করায় কিশোরীর পরিবার থানায় মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় পুলিশ অভিযুক্তদের আটক করে আদালতে সোপর্দ করলে আসামিরা আদালতে আপোস মীমাংসার কথা বলে জামিনে এসে মামুনের পরিবারের লোকজন নাসরিনকে হত্যা করার হুমকি দিচ্ছে বলে তার পরিবার স্থানীয় প্রেস ক্লাবে লিখিত অভিযোগ করেছে। এতে আতঙ্কে দিন কাটছে নির্যাতিতা ওই কিশোরী ও তার পরিবারের ।
এ ঘটনাটি ঘটেছে ঈশ্বরগঞ্জ পৌর সদর চরনিখলা গ্রামে। জানা যায় ওই গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের মেয়ে নাসরিন আক্তার (১৬) এর সাথে একই গ্রামের আবদুছ ছাত্তারের ছেলে মামুন মিয়া (২২) বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এতে নাসরিন অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়ে। বিষয়টি এলাকায় জানা যানির পর স্থানীয় সালিশ দরবারে নাসরিনকে বিয়ে করে ঘরে তোলে নেয়ার জন্য বললে মামুন ও তার পরিবার বিয়ে করাতে অস্বীকৃতি জানায়। নিরুপায় হয়ে নাসরিনের পরিবার গত ২০ নভেম্বর মামুন তার ভাই জব্বার ও কারিমকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করে। ওই মামলায় মামুন ও তার দুই ভাইকে ২০ নভেম্বর পুলিশ গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে। গত ৩০ নভেম্বর আদালতে নাসরিনকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে মামুন ও তার দুই ভাই আদালত থেকে জামিন নেয়। জামিন পাওয়ার পর মামুন সহ তার পরিবারের লোকজন নাসরিনকে হত্যা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে হয়রানি করার পায়তারা করছে বলে নাসরিনের পরিবারের অভিযোগ।