| |

কিশোরগঞ্জে মসনদ-ই-আলা ঈশা খানের ৪১৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

নজরুল ইসলাম খায়রুল, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: বৃহত্তর ভাটিরাজ্যের অধিপতি বাংলার মহাবীর মসনদ-ই- আলা ঈশা খানের ৪১৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার কিশোরগঞ্জ ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসুচী গ্রহণ করে। কর্মসুচীতে অন্তভ’ক্তি ছিল আলোচনাসভা, কোরআনখানি, ও দোয়া মাহফিল। মহাবীর ঈশা খানের স্মৃতি বিজড়িত জঙ্গলবাড়ির বসতভিটায় সকালে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন পরিষদের সভাপতি সাংবাদিক ও লেখক মো.রেজাউল হাবীব রেজা। পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লেখক ও গবেষক আমিনুল হক সাদীর পরিচালনায় আলোচনায় অংশ নেন জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার কিশোরগঞ্জ জেলা ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল্লাহ, কিশোরগঞ্জ ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেম, ঈশা খানের ১৫ তম অধস্তন পুরুষ দেওয়ান জালাল দাদ খান, দেওয়ান জামাল দাদ খান, ঈশা খান স্মৃতি সমাজ কল্যাণ পরিষদের কোষাধ্যক্ষ মো,এজ্জাজ হোসেন কাজল, কবি নিরব রিপন, মো. সোনা মিয়া, মো. আ.সোবহান প্রমুখ। দুপুরে মহাবীর ঈশা খানের স্মৃতি বিজড়িত ঈশা খান জামে মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দোয়া মাহফিলে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ সর্বস্তরের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও মহিনন্দ ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ ও মহাবীর ঈশা খানের ১৫ তম অধস্তন পুরুষদের পক্ষ থেকে ও বিভিন্ন কর্মসুচী নেওয়া হয়েছিল।
উল্লেখ্য ১৫৩৬ মতান্তরে ১৫৩৭ সালের ১৮ অক্টোবর বিবাড়িয়া উপজেলার সরাইলে জন্ম গ্রহন করেন। প্রথমে সরাইলে পরবর্তীতে সোনারগাওয়ে রাজধানী স্থাপন করে বাংলার শাসক ছিলেন। পরবর্তীতে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার জঙ্গলবাড়িতে বৃহত্তর ভাটি রাজ্যের রাজধানী স্থাপন করেন। ৬২ বছরের মধ্যে ৩৬ টি বছরই মোঘলদের সাথে  অবিরাম যুদ্ধের ফলে জীবনের উচ্ছলতায় ভাটা পড়ে যায় মহাবীর ঈশা খাঁনের। ১৫৯৯ খ্রিষ্টাদ্ধের দিকে ঈশা খাঁন কিছুদিনের বিশ্রামের জন্য সোনারগাঁও থেকে মহেশ্বরদী পরগণা বর্তমান গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার বক্তারপুর গ্রামের বক্তারপুর দুর্গের প্রাসাদভাটিতে গমণ করেন। সেখানে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে শারিরিকভাবে খুবই দুর্বল হয়ে যান। রাজকীয় চিকিৎসায় অবিরাম চেষ্টা করেও তাঁকে সুস্থ করে তুলতে ব্যর্থ হন। এই অবস্থায় ১৫৯৯ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর বৃহত্তর ভাটিবাংলা অধিপতি মসনদ-ই- আলা ঈশা খান  গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার বক্তারপুরে মৃত্যুবরণ করেন এবং সেখানেই তাকে দাফন করা হয়।