| |

হজ ব্যবস্থপনায় কোন ধরণের কৃত্রিম সংকটের চেষ্ঠা করলে তাদেরকে আইনের মুখোমুখি করা হবে-ধর্মমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ধর্মমন্ত্রী আলহাজ অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেছেন, সৌদি কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় এবং হজ ব্যবস্থাপনাকে আরো স্বচ্ছ, জকাকদিহি ও গতিশীল করতে প্রথমবারের ন্যায় সরকার হজ ব্যবস্থাপনাকে ডিজিটাল হজ ব্যবস্থাপনায় রূপান্তর করতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার কাজ করছে। এ জন্য আইটি প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, পাসপোর্ট, ন্যাশনাল আডি কার্ড ও পুলিশ বেরিফিকেশণসহ নানা সংযুক্ত করে প্রাক নিবন্ধন পদ্ধতি চালু করা করা হয়েছে। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইটি প্রতিষ্ঠান বিজনেস অটোমেশন কর্তকৃক ২০১৬ সনে হজে গমনেচ্ছুদের প্রাক নিবন্ধন বিষয়ে সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচী উদ্বোধনকালে গতকাল বিকালে প্রধান অতিথি হিসাবে ধর্মমন্ত্রী উপরোক্ত কথা বলেন। হজ অফিস আশকোনা ঢাকায় অতিরিক্ত সচিব শহিদুজ্জামানানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচীতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ধর্মমন্ত্রনালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোঃ আব্দুল জলিল। এছাড়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন হাব সভাপতি ইব্রাহিম বাহার, হজ পরিচালক আবু সালেহ মোস্তফা কামাল প্রমুখ। এ সময় ধর্মমন্ত্রী আরো বলেন, সরকার সর্ব্বোচ্য অগ্রাধিকার দিয়ে হজ ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ইতিমধ্যেই জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি এবং হজ প্যাকেজ মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করা হয়েছে। ২০১৫ সালে নির্ধারিত কোটার চেয়ে ২০ হাজার অধিক হজযাত্রীসহ ১ লাখ ৬ হাজার ৫৫০ হজ পালন করেন। যা রেকর্ড। জন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে গত সাত বছরের ন্যায় এবারো হজ ব্যবস্থাপনাকে সুষ্ঠ ও সুন্দর করতে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। হজ ব্যবস্থপনায় যদি কেউ কোন ধরণের কৃত্রিম সংকট তৈরীর চেষ্ঠা করেন তাহলে তাদেরকে চিহিৃত করে আইনের মুখোমুখি করা হবে। ব্যক্তি পর্যায়ে হলেও তাদেরকে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। তিনি আরো বলেন গত ১৪ ফেব্র“য়ারী ধর্মমন্ত্রীর নেতৃত্বে ৫ সদস্যের একটি দল সৌদি আরবের সাথে হজসংক্রান্ত ৪টি চুক্তি সম্পাদন করা হয়েছে। চুক্তি অনুসারে এ বছর ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ হজযাত্রী হজে যেতে পারবেন। এছাড়া আরো ৫ হাজার অতিরিক্ত হজযাত্রীকে হজে যাওয়ার সুযোগ দিতে সৌদি সরকারের প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে।