| |

পুলিশের অভিযানে উদ্ধার হলো কলমাকান্দার অপহৃত স্কুলশিশু সামী, গ্রেফতার-১

সৌমিন খেলন : নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলা থেকে অপহৃত স্কুলশিশু সামী খানকে (৭) অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপহরণ কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অপরাধে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয় ময়মনসিংহের ইশ্বরগঞ্জ উপজেলার গিরিদরপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে আব্দুল করিম। মঙ্গলবার (১ মার্চ) দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে উদ্ধার হওয়া শিশু সামী ও তার পরিবারকে সাথে নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান, পুলিশ সুপার (এসপি) জয়দেব চৌধুরী। এরআগে সোমবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) মধ্যরাতে কলমাকান্দা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মমতাজ উদ্দিনের নেতৃত্বে বিশেষ অভিযান চালিয়ে গাজীপুর চৌরাস্তা বাস্ট্যান্ড এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। রোববার (২৯ ফেব্রয়ারি) দুপুরের দিকে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে প্রতিবেশী গারামপাড়া গ্রামের আরফান আলীর ছেলে জালাল’র হাতে অপহরণ হয় ওই উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের বড়তলা গ্রামের আবু সাঈদ খানের ছেলে, বড়তলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র সামী। অপহরণ করে শিশুটিকে নেত্রকোনা থেকে ইশ্বরগঞ্জের গিরিদরপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের বাড়িতে প্রথম নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে রাতে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে গাজীপুর চৌরাস্তার বাস্ট্যান্ডে নিলে গ্রেফতার হয় জালালের সহযোগী করিম। পালিয়ে যেতে সক্ষম অপহরণকারী জালাল। এদিকে শিশুর বাবা সাঈদ খানের অভিযোগ মতে অপহরণের পর অপরাধী চক্রটি রাতে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সামীর মুক্তিপণ হিসেবে ৪০ হাজার টাকা দাবি করেন। পরে সাঈদ ছেলেকে ফিরে পাওয়ার আশায় সোমবার সকালে অপহরণকারীদের মোবাইল নাম্বারে বিকাশের মাধ্যমে ২৫ হাজার পাঠায়। কিন্তু তাতেও ফিরে আসেনি সামী। ছেলেকে ফিরে না পাওয়ায় সংশ্লিষ্ট থানায় সাধারণ একটি ডায়রি লিপিবদ্ধ করেন সাঈদ। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) হাবিবুর রহমান প্রামাণিক, খান মোহাম্মদ আবু নাসের (অপরাধ), কলমাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমানসহ অনলাইন, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ।