| |

মুক্তাগাছায় ৫০ টাকার জন্য বোন জামাইয়ের লাথিতে ভিক্ষুকের মৃত্যু লাশ দাফন নিয়ে টানাটানি

মুক্তাগাছা প্রতিনিধি : মাত্র ৫০ টাকা না দেওয়াতে ছোট বোন জামাইয়ের লাথির আঘাতে হাজেরা খাতুন নামে এক বৃদ্ধা ভিক্ষুকের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের পরিবার ও প্রতিপক্ষের টানাটানিতে সকালের লাশ রাতেও দাফন করা হয়নি। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার সকালে শহরের মুজাটি ফার্মের মোড় এলাকায়।
এলাকাবাসী জানায়, মুজাটি গ্রামের মৃত মফিজউদ্দিনের বৃদ্ধা স্ত্রী হাজেরা খাতুন তার ছোট বোন ছফুরার বাড়ির পাশেই একটি কুঁড়ে ঘর তোলে মেয়ে ও দুই নাতিদের নিয়ে বসবার করেন। মেয়ে খালেদা খাতুন ও তার মেয়ের ভিক্ষার চাল া দিয়েই চলে তাদের সংসার। ভিক্ষার টাকা থেকে কিছু টাকা জমিয়ে রাখেন টিন কিনে নতুন ঘর দেওয়ার। ওই জমানো টাকা থেকে তার ছোট বোন জামাই মহিরউদ্দিন ৫০ টাকা ধার চান। ওই টাকা না দেওয়ায় ঘটনার দিন সকাল ৮টায় বোন জামাই মহিরউদ্দিন ভিক্ষুক হাজেরা খাতুনকে লাথি ও টানাহেঁচড়া করেন। এর পর বাড়ি থেকে বের হয়ে কয়েকশ গজ যাওয়ার পরই মাটিতে লুটে হাজেরার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পর থেকে দু’টি পক্ষ হাজেরার লাশ নিয়ে টানাটানি শুরু করেন। হাজেরার বোন চান তার লাশ দাফন করতে। আর হাজেরার মেয়ে খালেদা খাতুন চান তার মায়ের সঠিক বিচার। এতে সকালে মৃত্যুর পরও গতকাল রাত ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার লাশ দাফন করা হয়নি।
নিহত হাজেরার মেয়ে খালেদা খাতুন সাংবাদিক ও উপস্থিত এলাকাবাসীকে বলেন, তার মাকে লাথি ও টানাহেঁচড়া করে হত্যা করা হয়েছে।
এদিকে হাজেরার ছোট বোন ছফুরা খাতুন বলেন, বাড়িতে ঝগড়া হওয়ার পর সে হার্ট স্ট্রোকে মৃত্যু বরণ করেছেন। তাকে কেউ মারধর করেননি।
মুক্তাগাছা থানার ওসি আবু মোঃ ফজলুল করিম বলেন, এলাকা থেকে জনৈক এক ব্যক্তি তাকে ফোনে বিষয়টি জানিয়েছেন। তবে এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ করেননি।