| |

আদর্শগত শিক্ষা গ্রহণ করে দেশ ও জনগনের কল্যানে কাজ করতে হবে-ওবায়দুল কাদের

রফিকুল ইসলাম শামীমঃ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন-পরবর্তী নির্বাচন আমাদের সরকারের টার্গেট নয়.আমাদের টার্গেট হলো পরবর্তী জেনারেশন। পরবর্তী জেনারেশন যদি ভাল হয় তাহলে বাংলাদেশ সফল হবে। আমাদের দল ও সরকার সফল হবে। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন জীবিকার জন্য নয় শিক্ষা হলো দেশের জন্য দেশের মানুষের কল্যানে কাজ করে যাওয়ার জন্য। তোমাদেরকে একটি আদর্শগত শিক্ষা গ্রহন করতে হবে,যে শিক্ষা দেশ ও জনগনের কল্যানে আসবে। তোমার শিক্ষা যদি জনগনের কল্যানে আসে তাহলেই তোমার শিক্ষা কাজে আসবে, যে শিক্ষার স্বপ্ন বঙ্গবন্ধু শেখ মবিবর রহমান দেখেছিলেন। ভয়কে জয় করতে না পারলে রাজনীতিবিদদের রাজ নীতি করে লাভ নেই.বঙ্গবন্ধু আমাদের সেই শিক্ষায় দিয়েছিলেন । তাই আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই রাজনীতি করে যেতে হবে, রাস্ট্রের জন্য কাজ করে যেতে হবে। জীবনের অপর নাম লড়াই আমাদের লড়াই করে টিকে থাকতে হবে। হিংসা দিয়ে কখনো হিংসাকে দূর করা যায়না.হিংসাকে দূর করতে হয় ভালবাসা দিয়ে। বঙ্গবন্ধু একজন সৎ রাজনীতবিদ ছিলেন অর্থ সম্পদের লোভ বঙ্গবন্ধুকে গ্রাস করতে পারেনি বলেই তিনি এতো বড় নেতা হতে পেরেছেন। বাঙ্গালীর হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান হতে পেরেছেন। সেই সততা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার মাঝেও রয়েছে বলে তিনি নিজস্ব অর্থায়নে সাড়ে ২৮শ কোটি টাকায় পদ্মা সেতু নির্মান করতে পারছেন। আমিও নেত্রীর সততা অনুস্বরন করে সততার সাথে দেশের মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। মন্ত্রী হিসেবে নয় আমি একজন মানুষ হিসেবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধু আমাকে নেই শিক্ষায় দিয়ে ছিলেন। সকলে সততার সাথে কাজ করে গেলে দেশ একদিন তার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌছতে পারবে। তিনি আরো বলেন কে বলে মজিব নাই.মজিব রয়েছে বাংলার কৃষকের মাঝে মজিব রয়েছে শ্রমিকের মাঝে মজিব রয়েছে বাংলার আপাময় জন সাধারনের মাঝে। যত দিন নদীর কলতান বইবে সমুদ্র গর্জন করবে ততদিন স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু বেচে থাকবেন ¯্রদ্ধায় ভালবাসায় আমাদের সকলের মাঝে। তিনি গতকাল বৃহস্প্রতিবার দুপুরে ময়মনসিংহের ত্রিশালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মবিবর রহমানের ১৭ তম জন্ম জয়ন্তি ও জাতীয় শিশু দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যদান কালে এসব কথা বলেন। ক্যাম্পাসের গাহি সাম্যের গান মঞ্চে ভিসি প্রফেসর ড.মোহীত উল আলমের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ট্রেজারার প্রফেসর এএমএম শামসুর রহমান,ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর ড.সুব্রত কুমার দে,কলা অনুষদের ডীন প্রফেসর ড.মাহবুব হোসেন। সভায় বঙ্গবন্ধু ও উন্নয়ন দর্শন শীর্ষক প্রবন্ধ পাঠ করেন প্রফেসর ড.নজরুল ইসলাম। বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর ড.বিজয় ভূষন দাস। স্বাগত বক্তব্য রাখেন চারুকলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সিদ্বার্থ দে। অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সাব্বির আহমেদ,সাধারন সম্পাদক আপেল মাহমুদ। সভা পরিচালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের প্রভাষক নুসরাত শারমিন ও লোক প্রশাসন ও সরকার পরিচালনা বিদ্যা বিভাগের প্রভাষক সঞ্জয় মুখার্জী। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করা হয়।
এর আগে ওবায়দুল কাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড.মোহীত উল আলম,ট্রেজারার প্রফেসর এএমএম সামসুর রহমান,ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর ড.সুব্রত কুমার দে,কলা অনুষদের ডীন প্রফেসর ড.মাহবুব হোসেন,প্রফেসর ড.নজরুল ইসলাম,ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম,জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মতিন সরকার,পৌর মেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান,ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান,ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শোভা মিয়া আকন্দ,জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক নবী নেওয়াজ সরকার,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন আকন্দ,সাবেক সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম,সাবেক আহবায়ক আবুল কালাম,হান্নান তালুকদার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম,কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সাব্বির আহমেদ,সাধারন সম্পাদক আপেল মাহমুদ,ত্রিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি খোরশিদুল আলম মজিব,সিনিয়র সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম শামীম,সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নোমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।