| |

মুক্তাগাছায় সাড়ে ৯ বছরের শিশু কন্যার রহস্যজনক মৃত্যু

মুক্তাগাছা প্রতিনিধি : উপজেলার নাঙ্গুলিয়া গ্রামে বুধবার সকালে জেসমিন আক্তার নামে সাড়ে ৯ বছরের এক শিশু কন্যার লাশ উদ্ধার করেছে মুক্তাগাছা থানা পুলিশ। পরিবারের দাবি সে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্বহত্যা করেছে। নিহত জেসমিন আক্তার ওই গ্রামের দিনমজুর ইয়াসিন আলীর একমাত্র মেয়ে ও নাঙ্গুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর শিক্ষার্থী।
এলাকাবাসী ও পরিবারের সদস্যরা জানান, দিনমজুর ইয়াসিন আলীর দুটি সন্তান জেসমিন আক্তার ও ইব্রাহিম খলিল। নাঙ্গুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বড় মেয়ে জেসমিন আক্তার লেখাপড়া করে ৪থর্ শ্রেনীতে আর ছোট ছেলে ইব্রাহিম খলিল একই বিদ্যালয়ে ২য় শ্রেনীেেত। ঘটনার দিন বুধবার খুব ভোরে ইয়াসিন আলী কাজে বের হয়। আর তার স্ত্রী শিল্পী আক্তার ছেলে-মেয়েদের টেবিলে পড়াতে বসিয়ে একই এলাকায় তার বাপের বাড়িতে বেড়াতে যায়। সকাল ৮টায় ঘরের ভেতর শিশু শিক্ষার্থীর গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ দেখে থানা পুলিশকে এলাকাবাসী খবর দেয়।

নিহত জেসমিনের পিতা ইয়াসিন আলী ও তার মা শিল্পী আক্তার বলেন, তাদের মেয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঘরের দড়নায় আত্বহত্যা করেছে।

মুক্তাগাছা থানার ওসি আবু মোঃ ফজলুল করিম বলেন, পরিবারের সদস্যদের কথায় মনে হচ্ছে সে আত্বহত্যা করেছে। তবে ছোট শিশুর আত্বহত্যার বিষয়টি রহস্যজনক মনে হচ্ছে।