| |

রাশেদের স্মৃতি রক্ষার্থে দুর্ঘটনাস্থলে স্মৃতিস্তম্ভ করা হবে-ইউএনও জাফর ত্রিশালের মানুষ তাকে আজীবন মনে রাখবে উপজেলা চেয়ারম্যান- জয়নাল আবেদীন

রফিকুল ইসলাম শামীমঃ ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপন বলেছেন-প্রয়াত ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলামের অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশের অপূরনীয় ক্ষতি সাধিত হয়েছে। যে ক্ষতি কখনো পূরন হওয়ার নয়,তার বিদায়ে আমাদের যে ক্ষত হয়েছে সেই ক্ষত ও শুকানোর নয়। সদা হাস্যময়ী আমাদের অতি প্রিয় রাশেদের স্মৃতি রক্ষার্থে ত্রিশালের যে জায়গায় সে দুর্ঘটনায় কবলিত হয়ে মৃত্যু বরন করেছে.সেই স্থানে স্মৃতি স্তম্ভ করা হবে। ত্রিশালের মানুষ অল্প দিনের মাঝে তাকে তাদের বুকে ধারন করেছে। আজীবন তার স্মৃতি তারা ধরে রাখবে বলে আমি বিশ^াস করি।
ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ জয়নাল আবেদীন বলেছেন-ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম ত্রিশালের মানুষের কল্যানের চিন্তা করে যে সমস্ত কাজ কওে গেছেন। ত্রিশালের মানুষের সাথে তিনি যেভাবে হাস্যউজ্জল ভাবে আচরন কওে গেছেন তা ভূলার নয়। ত্রিশালের মানুষ তার এই অল্প দিনের কর্মকান্ড ও আচার আচরনের কারনে তাকে কখনো ভূলবেনা। তার অল্প দিনের কর্মকান্ডের মাধ্যমেই তিনি ত্রিশালের মানুষের অন্তরে আজীবন বেঁচে থাকবেন। গতকাল মঙ্গলবার ত্রিশালের প্রয়াত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম সড়ক দুর্ঘনাস্থল পরিদর্শন কালে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ জয়নাল আবেদীন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপন এসব কথা বলেন। এসময় উপজেলা প্রকৌশলী সাবের আলী,উপসহকারী প্রকৌশলী শামছুল হুদা,ত্রিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি খোরশিদুল আলম মজিব,সিনিয়র সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম শামীম,সম্মানীত সদস্য রেজাউল করীম বাদল,সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নোমান,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ত্রিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি খোরশিদুল আলম বলেন-একজন দক্ষ প্রশাসক একজন ভাল মানুষ একজন ন্যায় বিচারক হিসেবে তিনি আমাদের ও ত্রিশাল বাসীর মন জয় করেছেন। তার স্মৃতিকে ধরে রাখতে আমাদের সাধ্যমত আমরা চেষ্টা করে যাবো ইনশাল্লাহ। ত্রিশাল প্রেসক্লাবের সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম শামীম বলেন-মানূস মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য এই কথা উপলদ্ধি করে যিনি সব সময় মানুষের কল্যানে মানুষের উপকাওে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন সদা হাস্যময়ী আমাদের সকলের প্রিয় ব্যক্তি রাশেদুল ইসলামকে আমরা কখনো ভূলতে পারবোনা। তার স্মৃতিকে চীর অম্লান করে রাখতে ত্রিশালে যা যা করার দরকার আমাদের তাই করা উচিৎ।
উল্লেখ্য গত ২৯ মার্চ ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম সরকারী কাজে মোটর সাইকেল যোগে যাওয়ার পথে উপজেলার বৈলর ইউনিয়নের নুরুর দোকান নামক স্থানে বাস চাপায় নিহত হন।