| |

ময়মনসিংহ বনবিভাগের উদ্যোগে বারোমারিতে উপকারভোগিদের ২কোটি ৩লাখ টাকার চেক হস্তান্তর

এএইচএম মোতালেবঃ ময়মনসিংহ বন বিভাগের উদ্যোগে শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলার মধুটিলা ইকোপার্কের আওতাধীন বাতকুচি,সন্ধ্যাকুড়া বনবিটে ২০০১,২০০২ সালে সৃজিত বাগান বিক্রির প্রাপ্ত অর্থের লভ্যংশ ৯৫জন অংশীদারদের মধ্যে ২কোটি ৩লক্ষ টাকা বিতরণ করা হয়েছে।
নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সাঈদ মোল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিভাগীয় বনকর্মকর্তা গোবিন্দ রায়, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নালিতাবাড়ী উপজেলার পৌর মেয়র আবুবকর ছিদ্দিক, প্যানেল মেয়র-১ সুরঞ্জিত সরকার (বাবলু), ১নং পোড়াগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আমজাদ মিয়া , রূপনারায়ন ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মিজানুর রহমান, রামচন্দ্রকুড়া ইউপি চেয়ারম্যান খুরশেদ আলম (খোকা), আওয়ামীলীগ নেতা বন্ধনা চাম্বু গং , বনরেঞ্জ কর্মকর্তা ইলুছুর রহমান ও এম এ করিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বিভাগীয় বনকর্মকর্তা গোবিন্দ রায় বলেন বর্তমান সরকার এদেশের মানুষের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। সে লক্ষ্যে আজকে তরিৎ গতিতে ২০০১,২০০২ সালে সৃজিত বাগান সমূহ বিক্রির সাতে সাথে প্রাপ্ত অর্থের লভ্যংশের টাকার চেক বিতরণ করা হয়েছে। ঝিনাইগাতী, শ্রীবর্দি ও নালিতাবাড়ী উপজেলায় চেকবিতরণ অনুষ্ঠিত হচ্ছ্ ে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্যদের চেক বিতরণ করা হবে। এ অঞ্চলে নতুন বাগান সৃজন করার উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। ৯৫জন উপকারভোগেিদর মধ্যে প্রায় ২কোটি ৩লাখ টাকার চেক আজ বিতরণ করা হল। এ প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে উপকারভোগীরা তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন আনতে পারবে বলে তিনি আশা করেন। অনুষ্ঠানের সভাপতি নালিতাবড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সাঈদ মোল্লা বলেন সরকারী বনভূমিতে সৃজিত বাগানে অর্থ সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে নিজেদের ভাগ্যের পরিবর্তন করুন। সাংবাদিক এএইচএম মোতালেব এর এক প্রশের জবাবে বলেন বর্তমান সরকার বন্যপ্রাণী সংরক্সনের জন্য কঠোর আইন করেছেন। এ আইনের প্রয়োগ এখনও করা হয়নি এ অঞ্চলে। বন্যপ্রানী নিধনকারীকে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। অপর একপ্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন এ অঞ্চলের পাখি সংরক্ষন করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। নতুন বাগান সৃজনের সময়ে দশভাগ ফলের গাছ রোপন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তিনি পাখির প্রতি যতœবান হয়ে এবং ফলের গাছ বাগানোর জন্য সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।