| |

সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকির এমপি আর নেই

শফিকুল ইসলাম মিন্টু ঃ ময়মনসিংহের গৌরীপুর আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডাঃ ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকির এমপি (৭৮) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গতকাল সোমবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তিনি ৩ মেয়ে, স্ত্রী ডা. নাসিমা আনোয়ার, নাতি-নাতনীসহ অসংখ্য আত্বীয় স্বজন, বন্ধু বান্ধব, রাজনৈতিক সহকর্মী ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে গৌরীপুর ও ময়মনসিংহ শহরে শোকের ছায়া নেমে আসে। তাদের প্রিয় নেতাকে শেষবারের মত এক নজর দেখতে হাসপাতালে ও মরহুমের নিজবাসা শহরের আকুয়াস্থ নাসিমা নার্সিং হোমে ভীড় জমান। রবিবার রাত ৯টার দিকে বাথরুমে পড়ে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন তিনি। রাত ২টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) মুজিবুর রহমান ফকিরের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমান, এডভোকেট মোসলেম উদ্দিন এমপি, ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্রশাসক এড জহিরুল হক। মরহুমের প্রথম নামাজে জানাযা বাদজোহর ময়মনসিংহ আঞ্জুমানে ঈদগাহ মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় জেলা, উপজেলা আওয়ামীলীগ, বিএনপির নেতাকর্মী ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। দুপুর পৌনে ৩টার দিকে বিমানযোগে মরহুমের দ্বিতীয় জানাযার জন্য ঢাকায় জাতীয় সংসদের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হয়। গৌরীপুর উপজেলা সদরে ৩য় এবং শেষ জানাযা গৌরীপুরের কলতাপাড়ায় অনুষ্ঠিত হবে। পরে তাঁর লাশ মরহুমের নিজে গড়ে তোলা কলতাপাড়া সেবাশ্রম সংলগ্ন গোরস্থানে দাফন করা হবে মরহুমের ভাই শাহ সাইফুল আলম পান্নু জানান। ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকির এমপি ১৯৪৭ সালের ১লা জানুয়ারি গোপালগঞ্জ জেলায় জন্ম গ্রহণ করেন। তার পৈতৃক নিবাস ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায়। তাঁর পিতার নাম মোজাফফর আলী ফকির এবং মাতার নাম সামসুন্নাহার। স্ত্রীর নাম ডা. নাসিমা আনোয়ার। তিনি ৩ কন্যার জনক।
ময়মনসিংহ জিলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, আনন্দ মোহন কলেজে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ১৯৬৫ সালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। ১৯৬৮-৬৯ এর আইয়ুব বিরোধী গণআন্দোলনে সক্রিয় অংশ গ্রহণ এবং ৭১’র সালে এমবিবিএস ফাইনাল পরীক্ষা রেখে বাঙ্গালীর হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ শেষে তিনি সেনাবাহিনীর মেডিকেল কোরে যোগদান করেন। সেনাবাহিনী থেকে অবসর নিয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত হন। তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ২০০১সালে, ২০০৮সনে ১লক্ষ ২হাজার ভোটের ব্যবধানে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৪সালের ৫ জানুয়ারী নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে একাধারে হ্যাট্রিক বিজয় অর্জন করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামী ?লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি গৌরীপুরে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার পিতলের ম্যুরাল, বঙ্গবন্ধু চত্বর, কলতাপাড়ায় ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের পাশে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার কলতাপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৫৩ ফুট উঁচু একটি ভাস্কর্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পারিবারিক ফটো গ্যালারি, নিজ পিতার নামে মোজাফ্ফর আলী ফকির স্কুল ও কলেজ স্থাপন করেন। মৃত্যু সংবাদ পেয়ে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ্ উদ্দিন, জেলা প্রশাসক মুস্তাকীম বিল্লাহ্ ফারুকী, পুলিশ সুপার মঈনুল হক, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান।