| |

ফুলবাড়ীয়ায় এবার মেম্বার প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

ফুলবাড়িয়া ব্যুরো অফিস : ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ৩নং কুশমাইল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার (টিউবওয়েল) প্রার্থী মো. নুরুল ইসলাম (ওরফে কডার বাপ) গতকাল মঙ্গলবার ১৭মে গ্রিনসিটিস্থ ২য় তলায় সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন তার নিশ্চিত বিজয় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।
জরাকীর্ণ সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, ৪র্থ ধাপে অনুষ্ঠিত নিউগী কুশমাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে নিয়ম অনুযায়ী সকাল ৮টা হতে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। গণণা শেষে তিনি ভোট কেন্দ্রের বারান্দায় দাঁড়িয়ে প্রিজাইডিং অফিসার শত শত লোকজনের সামনে ফলাফল ঘোষণা করেন। এতে, আমি টিউবওয়েল প্রতিক ৫৯৭ভোট পেয়ে ১ম স্থান অধিকার করি এবং মো. আলাউদ্দিন, ঘুড়ি প্রতিক ৫২২ভোট পেয়ে ২য়স্থান অধিকার করে অর্থাৎ ৭৫ভোট বেশি পেয়ে আমি নির্বাচিত হই। এ ঘোষণায় আমার কর্মী ও সমর্থকরা উল্লাসে ফেটে পড়ে এবং বিজয় মিছিল নিয়ে বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে। বিজয় মিছিল চলাকালীন সময় হঠাৎ খবর আসে প্রিজাইডিং অফিসার সাহেব রির্টানিং অফিসারের কাছে ফলাফল সিট জমা দিতে পারছেন না। কারণ (তার ভাষ্য অনুযায়ী) কে বা কারা ফলাফল সিট ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। আমার ধারনা ছিল নির্বাচন পরিচালনাকারী কর্তৃপক্ষ প্রিজাইডিং অফিসারের নিকট থাকা কাগজপত্রের ভিত্তিতে তাৎক্ষনিকভাবে ফলাফল সিট তৈরি করে ফলাফল ঘোষনা করার ব্যবস্থা করবেন। কিন্তু তা না হওয়ায় আমার নিশ্চিত বিজয় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। জনসাধারণ যেহেতু স্বতঃস্ফুর্তভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে আমাকে বিজয়ী করেছে সেহেতু ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আমি মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এড. মোসলেম উদ্দিন মহোদয় ও ভোট গ্রহণ কার্যক্রম পরিচালনায় অংশ গ্রহণকারী কর্তৃপক্ষের কাছে আমাকে উক্ত ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার ঘোষণার জোর দাবী জানাচ্ছি।
উল্লেখ, এর আগেও একই কেন্দ্রে ফলাফল ছিনতাইয়ের ঘটনায় চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. শামছুল হক (নৌকা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী প্রার্থী) এম এ জব্বার পৃথক পৃথক সংবাদ সম্মেলন করেছেন।