| |

নতুন বিভাগ ময়মনসিংহে ইমাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন সময়ের দাবী

আবুল কাশেম ঃ প্রশিক্ষনের বিকল্প নেই। প্রশিক্ষিত ব্যক্তি অন্য দশজনের চেয়ে একটু আলাদা। একজন দক্ষ প্রশিক্ষিত নাবিক ছাড়া নৌযান যেমন গন্তব্যে পৌঁছতে পারেনা তেমনি দক্ষ প্রশিক্ষিত জনবল ছাড়া দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভবপর হয়না। প্রশিক্ষনের মিশন-ভিশন সামনে রেখে বাংলাদেশ সরকার মহিলাদের জন্য মহিলা প্রশিক্ষন কেন্দ্র, যুবকদের জন্য যুব প্রশিক্ষন কেন্দ্র এবং আলেম উলামা ও ইমামদের জন্য ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেছে। দেশের জেলায় জেলায় এযাবৎ ৫৩টি যুব প্রশিক্ষন কেন্দ্র বিদ্যমান আছে বাকী ১১টি জেলায় যব প্রশিক্ষন কেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে। দেশ উন্নয়ন তথা ভবিষ্যত প্রজন্মের উন্নত নিরাপদ দেশ মাতৃকা বিনির্মানে প্রশিক্ষন একাডেমী গুলো বিশ্বে মডেল হিসাবে পথিকৃত হয়ে থাকবে। দেশের সকল শ্রেণীর লোকদের প্রশিক্ষিত করার পরিকল্পনায় আলেম-উলামা ও ইমামদের জন্য দেশে মোট সাতটি ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী রয়েছে। আমাদের মাতৃভূমি মুসলিম অধ্যুষিত কৃষি প্রধান দেশ। এ দেশে প্রায় প্রতিটি গ্রাম-পাড়া-মহল্লায় মসজিদ রয়েছে। পরিসংখ্যানে দেখা যায় দেশে প্রায় ৩ লক্ষ মসজিদ আছে। এতে কর্মরত রয়েছেন প্রায় ৬-৭ লক্ষ ইমাম মুয়াজ্জিন, খাদেম। প্রতি শুক্রবারে প্রায় ৬-৭ কোটি মানুষ মসজিদে হাজির হয়। জুম্মার ওয়াজ সকলেই শ্রবণ করেন। ইমামরা মুসল্লীদের বিশ্বস্ত ও প্রিয় পাত্র। এত বিশাল জনগোষ্ঠির জন্য মাত্র ৭টি ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী খুবই কম। এছাড়া ৭টি বিভাগে ৭টি ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী রয়েছে। ঢাকা বিভাগ বড় বিভাগ লোক সংখ্যাও বেশী সংগত কারনেই মসজিদের সংখ্যাও বেশী কিন্তু ঢাকা বিভাগে যেখানে ৩-৪টি প্রশিক্ষন একাডেমী প্রয়োজন সেখানে রয়েছে মাত্র একটি। উল্লেখ্য, ঢাকা বিভাগের মধ্যে ময়মনসিংহ একটি বৃহত্তর পুরাতন জেলা। এই একটি জেলা থেকে ক্রমান্বয়ে ৬টি জেলা যেমন ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, শেরপুর, টাংগাইল, জামালপুর প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকার কাছের জেলা হিসাবে এতদাঞ্চলে ঘন জনবসতি গড়ে উঠেছে। মসজিদ মাদ্রাসাও বেশী । আলেম ওলামা ইমামদের প্রশিক্ষনের আওতায় আনার জন্য ময়মনসিংহ অঞ্চলে একটি ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী স্থাপন সময়ের দাবী। আরেকটি দিক হল দেশের ছোট বড় ৭টি বিভাগেই ইমাম প্রশিক্ষন কেন্দ্র স্থাপিত হয়েছে। সেই সুবাদে নব ময়মনসিংহ বিভাগেও ইমাম প্রশিক্ষন কেন্দ্র স্থাপন জরুরী। আশার কথা দেশ নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক নীতিগত সিদ্ধান্তে ময়মনসিংহ জেলায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন জেলা কার্যালয় বহুতল ভবন নির্মিত হয়েছে। ময়মনসিংহকে বিভাগ ঘোষনা করায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে ময়মনসিংহবাসী চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। বিভাগ ঘোষনা করার সুবিধা হেতু ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর বিভাগীয় কার্য্যক্রমও চালু হবে এটিই স্বাভাবিক। যতদুর জানা যায় ময়মনসিংহ ইসলামিক ফাউন্ডেশন বহুতল ভবনের পাশ্বেই সরকারী জমি রয়েছে। সেখানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বিভাগীয় কার্য্যালয় এবং ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমী স্থাপন করা যেতে পারে। জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতাত্তোর ইসলামের প্রচার প্রসারে ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। পৃথিবীর ইতিহাসে এ এক বিরল ইতিহাস। পৃথিবীর কোন মুসলিম দেশে দাওয়াতী কার্য্যক্রমের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন নেই। বঙ্গবন্ধুর গড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশন একটি দূরদর্শিতার সাক্ষ্য বহন করছে। পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে জংগী, সন্ত্রাস সুইসাইডের মত জঘন্যতম অপরাধ বিরাজ করলেও বঙ্গবন্ধুর গড়া আমাদের দেশ মাতৃকা আজও মুসলিম অমুসলিম সম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মডেল হিসেবে স্বীকৃত। পৃথিবীর অনেক মুসলিম দেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও ইমাম প্রশিক্ষণ স্থাপনে বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে আগ্রহী। ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর ফুল ফলে বিকাশমান কেন্দ্র হল ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী। বঙ্গবন্ধুর দেশ প্রেম তথা কতটুকু ইসলাম দরদী ছিলেন ইমাম প্রশিক্ষন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন তার সাক্ষী।
বর্তমান সরকারের র্ধমমন্ত্রীও ময়মনসিংহ অঞ্চলের প্রবীণ রাজনীতিবিদ বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিত্ব। ধর্ম মন্ত্রীর সদিচ্ছায় ময়মনসিংহে তবলীগ জামাতের মাবকাজ বিশালাকার রূপ পেয়েছে। আশা করা যায় ধর্ম মন্ত্রীর সুদৃষ্টি থাকলে এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসলে খুব শীঘ্রই নতুন ময়মনসিংহ বিভাগে ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমীর কার্য্যক্রম শুরু হবে। ইমাম প্রশিক্ষন কেন্দ্র স্থাপনের জন্য ময়মনসিংহবাসী বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন।