| |

নকলা উপজেলায় পাট চাষে অনাগ্রহী কৃষকরা

নকলা সংবাদদাতা: পাট চাষ লাভ জনক ফসল হলেও অতীত অতিহ্য থেকে পিছিয়ে পড়ছে নকলা উপজেলার পাট চাষীরা। একসময় নকলা উপজেলাতে বিস্তর পাটের আবাদ ছিল। এখানকার পাট গুণগত মান সম্পন্ন হওয়ায় দেশের বিভিন্ন জেলায় তথা দেশের বাহিরেও রপ্তানি করা হতো। বিবিধ সমস্যায় ও প্রতিকুলতার কারণে নকলা উপজেলার কৃষকরা আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। নকলা উপজেলার কৃষি অফিসার হুমায়ুন কবির জানান, চলতি মৌসুমে নকলা উপজেলায় ৮৫০ হেক্টর জমিতে দেশী, তোষা ও মেসতা জাতের পাট আবাদ করা হয়েছে। বাস্তবে এর পরিমাণ অনেক কম। পাট চাষ লাভজনক এ জন্যে যে এক একর জমিতে উৎপাদিত পাটের বিক্রয় মূল্যের সাথে তুলনা করলে ৫ একর জমির ইরিবোরো ধানের সমপরিমাণ দাঁড়ায়। তারপরও এলাভ জনক আবাদে কৃষকদের অনাগ্রহের কারণ সমূহের মধ্যে রয়েছে, পাট পচানোর ব্যবস্থা নেই, পাটের পরিচর্যা আগাছা পরিস্কার ও পাট খোসানোতে যে শ্রমিকের প্রয়োজন হয় তারও অভাব রয়েছে। মাঠে ইরিবোরো ধান সহ বিভিন্ন প্রকার হাইব্রিড সবজি আবাদের ফলে জমিতে পাট চাষের উপযোগীতা কমে যাচ্ছে। এসব কারণে কৃষকরা পাট চাষ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিচ্ছেন।
এক কালে সোনালী আঁশ হিসেবে খ্যাত পাট চাষ লাভজনক হওয়ায় এর পরিচর্যা ও পাট চাষীদের ঋণ সুবিধা দিয়ে নকলা উপজেলায় পাট চাষকে গতিশীল করলে কৃষকদের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সহায়ক হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।